সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «  

১৫ মার্চের পর চলবে না লাইসেন্সবিহীন মোটরসাইকেল



images4নিউজ ডেস্ক: আগামী ১৫ মার্চের পর থেকে সারা দেশে লাইসেন্সবিহীন কোনো মোটরসাইকেল চলতে পারবে না। পুলিশ সদর দফতর থেকে পুলিশ সুপারদের কাছে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া মোটরসাইকেলের লাইসেন্স খরচ কমানোর জন্য সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রণালয়েও একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। অপরাধ প্রবণতা কমাতে এবং বিপুল পরিমাণ লাইসেন্সবিহীন মোটরসাইকেলকে লাইসেন্সের আওতায় আনতে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
শনিবার পুলিশের আইজি এ কে এম শহীদুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেন।
পুলিশের আইজি জানান, সাম্প্রতিককালে মোটরসাইকেলে চড়ে যেসব অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে, তার বেশির ভাগেরই লাইসেন্স নেই। ফলে এসব অপরাধীকে পাকড়াও করা কঠিন হয়ে পড়ে। তাদের অনেক খোঁজা-খুঁজি করেও হদিস পাওয়া যায় না।
এ ছাড়া অনেকে সাংবাদিক লেখা স্টিকার লাগানো লাইসেন্সবিহীন মোটরসাইকেলে করে অপরাধ কর্মকাণ্ড করছেন। ফলে অপরাধ করে গাড়িটি ফেলে গেলেও তাদের কিছুই করার থাকে না। পক্ষান্তরে লাইসেন্স করা মোটরসাইকেল নিয়ে কোনো অপরাধ করলে তাদের সহজেই পাকড়াও করা সম্ভব। খুব সহজেই তাদের শনাক্ত করা যায়।
এ কে এম শহীদুল হক জানান, লাইসেন্সবিহীন গাড়ি যারা ব্যবহার করছেন তাদের অনেকেই বিভিন্ন দলের ছাত্রসংগঠনের নেতা-কর্মী। তাদের গাড়িতে সাংবাদিক, আইনজীবী ও পুলিশ লেখা রয়েছে। এদের সংখ্যা অনেক। এই বিপুল পরিমাণ লাইসেন্সবিহীন গাড়িকে লাইসেন্সের আওতায় আনতে সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রণালয়কে লাইসেন্স ফি কমানোর জন্য চিঠি পাঠানো হয়েছে।
পার্শ্ববর্তী দেশের উদাহরণ টেনে আইজিপি জানান, পাশের দেশে যেখানে একটি মোটরসাইকেল লাইসেন্স করতে মাত্র পাঁচ হাজার টাকা লাগে। সেখানে বাংলাদেশে একটি ১০০ সিসি মোটরসাইকেলের জন্য ১২ হাজার এবং ১৫০ সিসির জন্য ২২ হাজার টাকা লাগে। এই ফি যদি কমানো যায় তবে অনায়াসেই লাইসেন্সধারীর সংখ্যা বাড়বে। ফলে তারা একটি আইনি কাঠামোর মধ্যে আসবে। তা ছাড়া সরকারের বিপুল পরিমাণ রাজস্য আদায় হবে।
এর আগে গত ২২ জানুয়ারি মোটরসাইকেলে চালক ব্যতিত কেউ উঠতে পারবে না, এ মর্মে সড়ক পরিবহণ ও মহাসড়ক বিভাগের একটি প্রজ্ঞাপন জারি হয়। এরপর ব্যাপক অভিযান চালায় পুলিশ। সম্প্রতি রাজধানীতে মোটরসাইকেলে দুজন ওঠা নিয়ে সাংবাদিক ও পুলিশের সদস্যদের মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। এর পরিপ্রেক্ষিতে সাংবাদিকদের জন্য মোটরসাইকেলে দুজন ওঠার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা শিথিল করেন আইজিপি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: