মঙ্গলবার, ৯ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক ইজিএনের নতুন সভাপতি, অনুরূপ সম্পাদক  » «   ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «  

সৌভাগ্য আনতে সেক্স পাহাড়ে পাড়ি তীর্থযাত্রীদের



sex1লাইফ স্টাইল ডেস্ক:: দূর থেকে দেখলে এই পাহাড়টাকে আর পাঁচটার মতই সুন্দর আর শান্ত দেখায়। কিন্তু আর পাঁচটা পাহাড় থেকে যে এটা অনেকটা আলাদা সেটা বোঝা যাবে এর ‘মাহাত্ম্য’-এর কথা শুনলে। তার আগে এর নামটা শুনেই হয়তো চমকে উঠবেন। এর নাম ‘সেক্স পাহাড়’। ইন্দোনেশিয়ার মধ্য জাভার এই পাহাড়ের ওপর অনেকটা হেঁটে ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করতে যেতে তীর্থযাত্রীদের।
এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানের রীতি অনুযায়ী অচেনা মানুষদের সঙ্গে যৌন সহবাস করতে হয়। সেক্স পাহাড়ে পুণ্য সঞ্চয়ের জন্য এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশ নেন বিবাহিত পুরুষ, মহিলা, সরকারী অফিসার, দেহব্যবসায়ীরাও। বিশ্বাস করা হয়, যে এই সেক্স পাহাড়ে সেক্স করলে ভাগ্য ফেরে। হাজার হাজার তীর্থযাত্রী এই সেক্স পাহাড়ে গিয়ে যৌন সহবাস অনুষ্ঠানে অংশ নেন। প্রতি রাতে প্রায় ৮ হাজার মানুষ সেক্স পাহাড়ে উঠে আজব এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দেন।
রীতি অনুযায়ী এই সেক্স পাহাড়ে গিয়ে ৩৫ দিন অন্তর পরপর সাতবার সেক্স করতে হয়। তাহলেই নাকি ভাগ্য ফিরে যায়। বেকাররা চাকরি পায়, শরীর রোগ মুক্ত হয়, গরীব লোকের আর অভাব থাকবে না, সংসারে অশান্তি বলে কোনও কিছু থাকবে না।

কিন্তু এমন ধর্মীয় রীতি শুরু হল কীভাবে? ইন্দোনেশিয়ার এই পাহাড়ি অঞ্চলের স্থানীয় মানুষরা জানান, ষোড়শ শতাব্দিতে এক ইন্দোনেশিয়ান যুবরাজ তাঁর সত্‍ মায়ের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। রাজা জেনে ফেলার পর যুবরাজ তাঁর সত্‍ মাকে নিয়ে এই পাহাড়ে আশ্রয় নেন। পাহাড়ে রাতে সেই পাহাড়ে মধ্য মৈথুনের সময় যুবরাজ ও তাঁর সত্‍ মাকে খুন করা হয়। পরে তাঁদের মৃতদেহ সেই পাহাড়ের পুঁতে ফেলা হয়।

সেখান থেকেই শুরু হয় এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানের। স্থানীয়দের অনেকের বিশ্বাস, সেক্স পাহাড়ে এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে সেক্স করলে ভাগ্য ফিরতে বাধ্য।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: