শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক ইজিএনের নতুন সভাপতি, অনুরূপ সম্পাদক  » «   ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «  

সাফ থেকে আফগানিস্থানের বিদায়!



afganস্পোর্টস ডেস্ক:: সাফ ফুটবলের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আফগানিস্তান। কিন্তু যদি এমনটি হয় আফগার ফুটবল দলটি আর অংশ নিচ্ছে না সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে তাহলে কেমন হবে! পাঠক আশ্চর্য হবার কিছুই নেই, সত্যিই সাফ ফুটবলে আর দেখা যাবে না বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আফগানিস্তানকে। সর্বশেষ অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত এএফসির কংগ্রেসে ভোটের মাধ্যমে চুড়ান্ত হয় বিষয়টি। এখন আর সাফের সঙ্গে যুক্ত নেই আফগানরা।

২০১৩ সালে নেপালের মাটিতে শক্তিশালী ভারতকে ২-০ গোলে হারিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার বিশ্বকাপ খ্যাত সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপা জিতেছিল আফগানিস্তান। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির মানুষ প্রমাণ করেছিল ফুটবল তাদের রক্তে বহমান। কিন্তু রাজনীতির মারপ্যাচে পড়ে সেই আফগানিস্তান এখন সাফের বাইরে। মধ্য এশিয়ার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে তারা। এর মানেই হলো পরবর্তী সাফ ফুটবলে দেখা যাবে না বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আফগানিস্তানকে।

অবশ্য গত কয়েক মাস ধরেই সাফ থেকে বের হওয়ার ইংগিত দিয়েছে দেশটি। ৯ তারিখে এএফসির ইজিএমে একটিই এজেন্ডা ছিল আফগানিস্তান। রবিবার বিকেলে ঠিক এমনটাই জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, ‘এতদিন আমাদের সাউথ এবং সেন্ট্রাল এশিয়া একসঙ্গে ছিল। সেন্ট্রালের রিকুয়েস্ট ছিল তারা সাউথ থেকে বের হয়ে যাবে। বিশেষ করে ইরানই এটা বেশি চেয়েছে। এএফসির কংগ্রেসে ওঠানো হয় যে এটাকে দুইটা কালচার করা হোক। আমরা সাউথ এশিয়ানরা চিন্তা করে দেখলাম এটা কোনো সমস্যা হচ্ছে না। তাই এএফসির কংগ্রেসে ভোটাভুটিতে ৪৫ জন মেম্বারই সাপোর্ট দিয়েছে আফগানিস্তানের আলাদা হতে। একমাত্র সিরিয়া আসেনি এই কংগ্রেসে। ফলে এফসি পাঁচটা ভাগ হয়ে যাচ্ছে- ইস্ট, ওয়েস্ট, আশিয়ান, সাউথ এশিয়ান এবং সেন্ট্রাল এশিয়া।’

আফগানিস্তানের মতো দল না থাকায় বাংলাদেশের অসুবিধা হবে না? এ প্রশ্নের জবাব কাজী সালাহউদ্দিন জানালেন,‘আট থেকে সাত দল হওয়াতেই টুর্নামেন্টে একটু দুর্বল হবেই। আমি মনে করি এটা ভালই হয়েছে, খারাপ হয়নি। আর আফগানিস্তান না থাকায় আমাদের জন্য সুবিধা হয়েছে।’

এখন থেকে পরবর্তী সাফ চ্যাম্পিয়নশীপ সাতটি দলকে নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে। যে কারনে গোটা টুর্নামেন্টের ফরম্যাটেরই আসবে পরিবর্তন।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: