সোমবার, ১৩ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Sex Cams
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

সাগরে ঠেলা দেয়া নীতির সমালোচনায় জাতিসংঘ



332. rohingaনিউজ ডেস্ক::
মাঝ সাগরে চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে ভাসতে থাকা প্রায় ছয় হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম এবং বাংলাদেশির জীবন রক্ষায় দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার তিনটি দেশের সরকারের প্রতি দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ। জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক কমিশনার জাইদ রাদ আল হোসেইন এই আহ্বান জানান। তিনি অভিযোগ করে বলেন, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া এবং থাইল্যান্ড এই অভিবাসীদের বহনকারী নৌকা সাগরে ঠেলে দেয়ার নীতি নিয়েছে।

ইন্দোনেশিয়া এবং মালয়েশিয়া যে কিছু অভিবাসীকে তীরে নামতে দিয়েছে, সেজন্যে জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান এই দুই দেশের প্রশংসা করেন। কিন্তু একই সঙ্গে তারা যে অভিবাসীদের সাগরে ঠেলে দিচ্ছে তাতে এদের জীবন বিপন্ন হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন এই জাতিসংঘ কর্মকর্তা।

তিনি বলেন, ‘থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া এবং মালয়েশিয়া অভিবাসী বোঝাই এসব নৌকা সাগরে ঠেলে দিচ্ছে এবং এর ফলে অনেক মানুষের জীবন বিপন্ন হচ্ছে। এদের জীবনকে আরো ঝুঁকির মুখে ঠেলে না দিয়ে আমাদের বরং উচিত তাদের জীবন রক্ষার দিকেই বেশি মনোযোগ দেয়া।’

জাইদ রাদ বলেন, এই অভিবাসীরা যেখান থেকে যেভাবেই তাদের সীমান্তে এসে পৌঁছাক, তাদের অধিকারকে অবশ্যই রক্ষা করতে হবে। এদেরকে অপরাধী বলে গণ্য করা এবং কারাবন্দী করা সমস্যার সমাধান নয়।

জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশনের হিসেব অনুযায়ী গত বছর মিয়ানমার এবং বাংলাদেশ থেকে প্রায় ৫৩ হাজার মানুষ সাগর পাড়ি দিয়ে থাইল্যান্ড বা মালয়েশিয়ার উদ্দেশে রওনা হয়েছে। গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে এবছরের মার্চ পর্যন্ত প্রায় ৯২০ জন সাগরে ডুবে মারা গেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: