মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

সরকারকে নাগরিক ঐক্যের ৭ দিনের আল্টিমেটাম



nagorik-uikkoনিউজ ডেস্ক :: চলমান সংকট নিরসনে সরকারকে সাত দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। আগামী সাত দিনের মধ্যে রাজনৈতিক অস্থিরতা থেকে জাতিকে মুক্ত করতে না পারলে সরকারকে পদত্যাগ করতেও আহ্বান জানান তিনি।
সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘সভা-সমাবেশসহ গণতান্ত্রিক অধিকার নিশ্চিতকরণ, জান-মাল রক্ষা ও সহিংসতা বন্ধের দাবিতে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এ আল্টিমেটাম দেন। গণফোরাম, নাগরিক ঐক্য, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল ও বাংলাদেশে কমিউনিস্ট পার্টি এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন, ডাকসু সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মুনসুর, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যর উপদেষ্টা এস, এম কামাল প্রমুখ।
তিনি বলেন, দেশে যে সংকটময় পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে তা নিরসনের দায়িত্ব সরকারের। সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ৮ থেকে ১০টি ট্রাক দিয়ে নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন সাবেক প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার জন্য ৮-১০টি ট্রাক দরকার হলে প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার জন্য তো ৩০-৪০টি ট্রাক প্রয়োজন। নিরাপত্তার নামে এ ধরণের ভ্রান্তি ছাড়তে বলেছেন তিনি।
সংবিধান বিশেষজ্ঞ ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, আজ দু’দলই সংবিধান ভঙ্গ করছে, সরকার দেখামাত্র গুলির কথা বলছে, আর বিরোধী দল বোমা মেরে মানুষ হত্যা করছে।
ড. কামাল হোসেন বলেন, পুলিশ আর জনগণের মধ্যে বিরোধ অসাংবিধানিক শাসনের পরিণতি। দেখামাত্র গুলি করার মতো আদেশ দিলে সংবিধান রক্ষা হয় না, সংবিধান লঙ্ঘন হয়।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, শেখ হাসিনা বলেছেন- ৫ জানুয়ারির নির্বাচন সংবিধান রক্ষা করার নির্বাচন। এখন সে কথা তিনি ভুলে গেছেন।
ড. কামাল বলেন, ১৬ কোটি মানুষই আজ সন্ত্রাস থেকে মুক্তি চায়। তারা কার্যকর গণতন্ত্র দেখতে চায়। তারা দেশে বোমাবাজি চায় না।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, এ দেশ কোনো ব্যক্তি বা দলের নয়। জনগণকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে আমরা দু’দলের হাত থেকে এ দেশকে বাঁচাবো।
জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব বলেন, রাজাকার যেমন কোনো দিন মুক্তিযোদ্ধা হতে পারে না, আওয়ামী লীগও কোনো দিন গণতন্ত্রী হতে পারে না।
তিনি বলেন, ফ্যাসীবাদী, স্বৈরাচারী এ সরকারের বিরুদ্ধে একটি জাতীয় ঐক্য প্রয়োজন।
সিপিবি সভাপতি মোজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, ‘দেশ আজ দুর্নীতিতে নিমজ্জিত। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতি বিরাজ করছে। বড় দু’টি দলের এ নিয়ে কোনো মাথা ব্যাথা নেই। তাদের একটাই লক্ষ্য যে কোনো উপায়ে ক্ষমতায় যাওয়া আর ক্ষমতায় টিকে থাকা। এজন্য তারা দেশের সাধারণ মানুষকে ব্যবহার করছে।’
তিনি বলেন, গণতন্ত্রকে সুনিশ্চিত করতে চাইলে জাতীয় সংলাপের বিকল্প নাই। দেশে প্রতিহিংসার রাজনীতি বন্ধ না করতে পারলে এবং দেশে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে না পারলে দেশের জনগণকে সঙ্গে নিয়ে রাজপথে নামার হুঁশিয়ারিও দেন তারা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: