রবিবার, ২৯ মে ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «  

সন্তান জন্ম দিতে আর নারীর প্রয়োজন হবে না



two_fatherতথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক :: সন্তান জন্ম দিতে প্রয়োজন নারী ও পুরুষ উভয়ের অংশগ্রহণ। কিন্তু এর বিকল্পও যদি থাকে? যদি নারীর অনুপস্থিতিতে দুই পুরুষের কোষ থেকেই জন্ম নেয় সন্তান তবে কেমন হবে?

যদি দুই পুরুষ নিজেরা পরিবার গঠন করতে চান তবে তাদের সন্তান অ্যাডপ্ট করতে হয় অথবা একজন এগ ডোনার বা সারোগেট খুঁজে বের করতে হয়। কিন্তু ভবিষ্যতে এর দরকার হবে না। Cell জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণা বলছে এই কথা। এর তথ্য মতে, এক সময়ে পুরুষের স্টেম সেল থেকেই উৎপাদন করা যাবে ডিম্বাণু। যার ফলে একটি শিশুর জন্ম হতে পারে দুই পুরুষ থেকেই।

প্রাইমর্ডিয়াল জার্ম সেল বা PGC হলো সেসব স্টেম সেল যারা শুক্রাণু এবং ডিম্বাণু যে কোনো এক ধরণের কোষ তৈরি করতে সক্ষম। সাধারণত আমাদের শরীর হরমোনাল সিগন্যাল এবং অন্যান্য কিছু ফ্যাক্টরের সাহায্যে ঠিক করে দেয় আমরা ফিমেল জার্ম সেল উৎপাদন করবো নাকি মেল জার্ম সেল। আগামী কয়েক বছরের মাঝে গবেষকেরা শারীরিক এই প্রক্রিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হবেন যার ফলে দুই পুরুষ থেকেই সন্তান জন্ম দেওয়া সম্ভব হবে। কি করে এটি সম্ভব হবে? একজন পুরুষের থেকে PGC গ্রহণ করা হবে এবং এর থেকে তৈরি করা হবে “উওসাইট” কোষ। একজন পুরুষের ক্রোমোজোমের X কপিতে যেহেতু মাতৃত্বের সব তথ্যই থাকে সুতরাং এই ডিম্বাণুতে কোনো সমস্যা থাকার কথা না। এরপর অপর পুরুষটির থেকে স্পার্ম স্যাম্পল গ্রহণ করে ওই ডিম্বানুকে নিষিক্ত করা হবে। তবে এই শিশুকে ১০ মাস গর্ভে ধারণ করার জন্য অবশ্য একজন সারোগেটের প্রয়োজন হবে।

এই প্রযুক্তি মানুষের আওতায় আসার আগে অবশ্য বেশ কিছু ধর্মীয় এবং নীতিগত ঝামেলা পার হতে হবে। এই মাত্রা পর্যন্ত মানুষের জেনেটিক মডিফিকেশন করাটা কি আসলে ঠিক হবে কিনা তা ঠিক করে বলা যাচ্ছে না। ইংল্যান্ডে সম্প্রতি বৈধ করা থ্রি প্যারেন্ট IVF পদ্ধতিটির সুবিধা হলো, এর মাধ্যমে বেশ কিছু সম্ভাব্য রোগের ঝুঁকি এড়ানো যায়। দুই পিতার অংশগ্রহণে এই সন্তান জন্মদানের তেমন কোনো উপকারিতা নেই। এছাড়া যারা সমকামী সম্পর্কের বিরোধী তারা যে এই প্রযুক্তির প্রতি বিমুখী আচরণ দেখাবেন তা নিশ্চিত। তাই এটি কতোটা গ্রহণযোগ্য হবে তা বলা যাচ্ছে না।

মূল: Lisa Winter, IFLScience

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: