শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক ইজিএনের নতুন সভাপতি, অনুরূপ সম্পাদক  » «   ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «  

রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ৫০ বিলিয়ন ডলার, শেষ হয়নি স্টল নির্মাণের কাজ



রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ৫০ বিলিয়ন ডলার, শেষ হয়নি স্টল নির্মাণের কাজ

dhaka-international-trade-fair-300x191নিউজ ডেস্ক :: মাসব্যাপী এ মেলার আজ চলছে তৃতীয় দিন। তৃতীয়দিনেও পুরোপুরি শেষ হয়নি মেলায় অংশ নেয়া সবগুলো স্টলের নির্মাণ কাজ।
গত বৃহস্পতিবার (১ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাসব্যাপী এ মেলার উদ্বোধন করলেও এখনো শেষ হয়নি মেলার প্রস্তুতির কাজ। বরাদ্দকৃত অধিকাংশ স্টলেরই চলছে মেরামত কাজ। অনেক প্যাভিলিয়নে মালামাল ওঠানো হয়নি। সেই সাথে অসম্পন্ন রয়েছে মেলায় অংশ নেয়া বেশিরভাগ বিদেশি প্যাভিলিয়নের।
মেলা প্রাঙ্গণে রয়েছে ইট-বালু ও মেরামত কাজের নানা সরাঞ্জামাদি। দর্শনার্থীদের হাঁটার জন্য সম্পূর্ণ উপযোগী হয়ে ওঠেনি মেলার মাঠ।
এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মেরামতকৃত স্টলগুলো পুরোপুরি প্রস্তুত করতে আরো কয়েকদিন সময় লাগবে।
এবারের মেলায় ৫০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে মাসব্যাপী এ মেলার আয়োজন করেছে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)।
স্টল নির্মাণের কাজ অসম্পন্ন থাকায় রপ্তানির যে লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে তা পূরণ করতে পারবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর(ইপিবি) এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, সবে মাত্র মেলা শুরু হয়েছে। এখন দশনার্থীরা ওভাবে আসা শুরু করেনি। তবে আশা করছি দুই একদিনের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে।
এদিকে ব্যবসায়ীদের অনেকেই বলেছেন, গতবছর মেলায় স্টলের নির্মাণ কাজ দেরিতে শেষ হওয়ার কারণে গতবছর মেলাতে ক্ষতি হয়েছিল। এবার সে ক্ষতি পোষাতে আগেভাগেই প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।
দেখা যায় প্রতিবছরই মেলা উদ্বোধনের পর অধিকাংশ স্টলের কাজ চলে। এর ফলে দর্শনার্থীরা অভিযোগ করেন, ৩০ টাকা টিকিট কেটে ঢুকেছি অথচ এখনো স্টলগুলো সাজানো হয়নি। অনেক স্টলের এখনো মেরামাত কাজ চলছে।
এ বিষয়ে ইপিবির উপ-সচিব রেজাউল করীম বলেন, বিশ্বের সবচেয়ে বড় এ মেলার আয়োজনে প্রথম দিকে কিছু সমস্যা থাকে। মেলার শুরুর আগেই বেশির ভাগ কোম্পানি তাদের প্রস্তুতি সেরেছেন। তবে এখনও কিছু স্টলের নির্মাণ কাজ শেষ হয়নি। আশা করছি দুই একদিনের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে।
এবারের রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রার বিষয়ে তিনি জানান, গতবারের চেয়ে এবার মেলায় ১০ শতাংশের বেশি রপ্তানি আদেশ বাড়তে পারে। সে হিসাবে বাণিজ্য মেলার এক মাসে ৯০ কোটি টাকার অর্ডার আসতে পারে।
রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) সূত্রে জানা যায়, ২০১০ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা থেকে মোট ৩২৮ দশমিক ৪ কোটি টাকার রপ্তানি আদেশ পাওয়া যায়। এর মধ্যে ২০১০ সালে ২২.৮৬ কোটি টাকা, ২০১১ সালে ২৫.০০ কোটি টাকা, ২০১২ সালে ৪৩.১৮ কোটি টাকা, ২০১৩ সালে ১৫৭ কোটি টাকা ও ২০১৪ সালে ৮০ কোটি টাকার রপ্তানি আদেশ পাওয়া যায়।
এছাড়া, এবারের মেলা থেকে দেশীয় পণ্যের আগাম অর্ডার আসবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন ইপিবির এই উপ-সচিব।
উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সাল থেকে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর আগে আরও ১৯ বার এই মেলা বসেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: