শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক ইজিএনের নতুন সভাপতি, অনুরূপ সম্পাদক  » «   ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «  

বিমান দুর্ঘটনার ৫ দিন পর মা-শিশু উদ্ধার



bbআন্তর্জাতিক ডেস্ক :: কলম্বিয়ার পশ্চিমাঞ্চলীয় একটি জঙ্গলে বিমান দুর্ঘটনার পাঁচ দিন পর মা ও শিশুকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। এই ঘটনাকে ‘অলৌকিক’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন সে দেশের বিমান বাহিনীর প্রধান।

বুধবার উদ্ধারকারীরা বিধ্বস্ত বিমানের কাছ থেকে ১৮ বছর বয়সী মারিয়া নেল্লি মুরিল্লো ও তার একবছর বয়সী ছেলেশিশুকে খুঁজে পান বলে বিবিসি জানিয়েছে। দুর্ঘটনায় মুরিল্লো সামান্য আহত হলেও তার ছেলে সম্পূর্ণ অক্ষত এবং সুস্থ্য রয়েছে।

গত শনিবার দুই ইঞ্জিনের বিমানটি চোকো প্রদেশের রাজধানী কুইবদো থেকে নুকুই শহরে যাওয়ার পথে ওই প্রদেশের আলতো বাউদো এলাকার জঙ্গলে বিধ্বস্ত হয়েছিল। বিমানটি কী কারণে বিধ্বস্ত হয়েছিল তা এখনো জানা যায়নি।

উদ্ধারকারীরা গত সোমবার প্রথমবারের মত বিধ্বস্ত বিমানটির কাছে পৌঁছতে সক্ষম হন। তারা বিমানটির পাইলট কার্লোস মারিয়ো সেবাল্লোসকে ককপিটে মৃত অবস্থায় দেখতে পান। ১৪ জনের একটি উদ্ধারকারী দল জঙ্গলটিতে তিনদিন খোঁজাখুঁজির পর বিমানটির ধ্বংসাবশেষ দেখতে পান।

এদিকে কলম্বিয়ার বিমান বাহিনীর প্রধান কর্নেল হেক্টর কারারাসকাল সংবাদ সংস্থা এএফপি’কে বলেছেন, ‘পাঁচ দিন পর মা ও শিশুকে জীবিত উদ্ধার করাটা সত্যিই একটি অলৌকিক ঘটনা। ওই জঙ্গলে আকস্মিকভাবেই দুর্ঘটনাটি ঘটেছিল।’ তিনি ওই তরুণী মায়ের প্রশংসা করে বলেন, তার সাহসের কারণেই শিশুটি এতদিন ধরে বেঁচে আছে।

এত বড় একটা বিমান দুর্ঘটনা থেকে কীভাবে মা ও শিশু বেঁচে গেলেন তা নিয়ে লোকজনের কৌতুহলের শেষ নেই। অনুমান করা হচ্ছে, দুর্ঘটনার ঠিক আগে ওই মা তার ছোট্ট ছেলেকে নিয়ে বিমানের জানলা থেকে জঙ্গলে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। এতেই বেঁচে যান তাঁরা। উদ্ধারের পর তাদের হেলিকপ্টারে করে উড়িয়ে নিয়ে গিয়ে কুইবদো হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: