মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক ইজিএনের নতুন সভাপতি, অনুরূপ সম্পাদক  » «   ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «  

বর্বর নির্যাতনের কথা স্বীকার করেছে সিআইএ



cia-agentঅনলাইন ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রে নাইন ইলেভেন হামলার পর আটককৃত সন্দেহভাজন আল-কায়েদা সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদের সময় সিআইএ বর্বর নির্যাতন চালিয়েছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে, তা স্বীকার করেছেন সংস্থাটির পরিচালক।

টেলিভিশনে দেয়া বিরল এক সাক্ষাতকারে সিআইএ’র পরিচালক জন ব্রেনান স্বীকার করেছেন যে আটকদের জিজ্ঞাসাবাদের কিছু পদ্ধতি জঘন্য ছিল।

তবে অাত্নপক্ষও সমর্থন করেছেন সিঅাইএ পরিচালক। তিনি বলেন, এসব জেরা থেকে মূল্যবান তথ্য সংগ্রহ করে একই ধরনের আক্রমণ প্রতিহত করে মানুষের জীবন রক্ষা করা সম্ভব হয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

সিআইএ’র কর্মকর্তাদের জেরার পদ্ধতি নিয়ে মার্কিন সিনেটে রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ার পর সমালোচনা মুখে এসব মন্তব্য করেন জন ব্রেনান।

যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ারে বিমান হামলার পর ২০০১ সাল থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত সন্দেহভাজনদের উপর ব্যাপকভাবে এই জিজ্ঞাসাবাদ কার্যক্রম চালানো হয়। পরবর্তীতে বারাক ওবামা ২০০৯ সালে এই কর্মসূচী বন্ধ করে দেন। জিজ্ঞাসাবাদে নানান ধরনের ভয়াবহ নির্যাতনমূলক পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়েছে বলে সিনেটের রিপোর্টে উঠে এসেছে।

সিনেটের প্রতিবেদনটি প্রকাশের পর জিজ্ঞাসাবাদের সাথে জড়িত কর্মকর্তাদের বিচারের আওতায় আনার জন্য দাবি তুলেছে জাতিসংঘ ও বেশ কিছু মানবাধিকার সংস্থা।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: