রবিবার, ২ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক ইজিএনের নতুন সভাপতি, অনুরূপ সম্পাদক  » «   ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «  

‘বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বহু আগেই দেশের মানুষ দারিদ্র্যমুক্ত হতো’



pmনিউজ ডেস্ক :: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বেঁচে থাকলে বহু আগেই এদেশের মানুষ দারিদ্র্যমুক্ত হতো বলে করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
তিনি বলেন, মানুষ রোগে মরবে, এটা স্বাধীন দেশে হতে পারে না।
শনিবার গণভবনে ১১টি মেডিকেল কলেজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তিনি এই ১১টি কলেজ উদ্বোধন করেন। যা ১১টি জেলায় স্থাপিত হয়েছে। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মেডিকেল কলেজগুলোতে শিক্ষা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন তিনি।
উদ্বোধন করা কলেজগুলোর মধ্যে ৬টি সরকারি মেডিকেল কলেজ ও ৫টি সেনা সদর দপ্তরের অধীনে আর্মি মেডিকেল কলেজ রয়েছে।
নতুন এসব মেডিকেল কলেজগুলো হলো- টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, জামালপুর, পটুয়াখালী ও রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজ।
এছাড়া ঢাকা, যশোর, রংপুর, বগুড়া ও কুমিল্লা সেনানিবাসে হচ্ছে আর্মি মেডিকেল কলেজগুলো।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের জন্য দুর্ভাগ্য যে বিএনপি-জামায়াত সরকারের আমলে সকল কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। পরে আমরা ক্ষমতায় এসে জনগণের স্বাস্থ্য সেবার কথা চিন্তা করে আবার সেগুলো চালু করি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা দেশের স্বাস্থ্য সেবার দিকে লক্ষ রেখেই দেশে একটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছি। আরো দুইটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করা হবে। একটি হবে চট্টগ্রামে আরেকটি রাজশাহীতে।
তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে আমরা ৭টি বিভাগে ৭টি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করবো। এ ছাড়া আরো একটি বিভাগ বাড়ানোর চিন্তা রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
শিক্ষা কার্যক্রমের উদ্বোধকালে প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশে মানুষ যেন ভালোভাবে বাঁচতে পারেন, না খেয়ে রোগে শোকে কষ্ট না পায় সেজন্য বর্তমান সরকার কাজ করছে। চিকিৎসা সেবা মানুষের মৌলিক অধিকার, চিকিৎসা না পেয়ে রোগে-শোকে কষ্ট পেয়ে মানুষ মারা যাবে এটা হতে পারে না।
‘জনসংখ্যার তুলনায় ডাক্তারের সংখ্যা কম, তাদের ওপর চাপ অনেক বেশি। এজন্য মেডিকেল কলেজের প্রয়োজন আগামীতে চট্টগ্রাম ও রাজশাহীসহ প্রতিটি বিভাগে ১টি করে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে’ বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
মেডিকেল কলেজগুলোর শিক্ষার মান যেন ভালো হয় সে বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে নজর দেয়ার নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন, মেডিকেল কলেজগুলো যেন মানসম্মত হয়, সেখান থেকে যেন রোগী মারার ডাক্তার বের না হয়। ডাক্তার হওয়া মানে পয়সা কামানো নয়, মানুষের সেবাই সবচেয়ে বড় কথা।
একাত্তরের ২৫ মার্চ রাতেই বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেছিলেন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই ঘোষণা টেলিগ্রাফ, টেলিপ্রিন্টার ও অন্য মাধ্যমে সারা দেশে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছিল। এ ঘোষণা দেয়ার কারণে তাকে পাকিস্তানি হানাদাররা গ্রেফতার করে নিয়ে গিয়েছিল। গ্রেফতার হওয়ার আগেই মুক্তিযুদ্ধ কিভাবে চলবে- সে ব্যাপারে সমস্ত ব্যবস্থা করে ও নির্দেশনা দিয়ে গিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু।
এ সময় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ১১টি মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: