বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «  

‘ফেসবুকে মিথ্যা বললে লজ্জা পেতে হবে’



facebook-inc-news-feed_0তথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক:: ফেসবুকে বিভিন্ন মিথ্যা তথ্য পরিবেশনের অভ্যাস পরবর্তীতে নিজেকে ফেলতে পারে লজ্জা পাওয়ার মতো পরিস্থিতিতে। এর ফলে নিজের কাছে নিজেকেই মনে হতে পারে গুরুত্বহীন।

একটি গবেষণা প্রতিবেদনে দেখা গিয়েছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ ব্যবহারকারী নিজের সত্য তথ্যকে চাপা দিয়ে ভুল তথ্য পরিবেশন করেন। এর মাধ্যমে তাঁরা নিজেকে সবার সামনে আরও আকর্ষণীয় করে উপস্থাপন করতে পারেন বলে তাঁদের কাছে মনে হয়। প্রাপ্তবয়স্ক তরুণদের মতে, তাঁরা তাঁদের সম্পর্ক, কর্মক্ষেত্রের সফলতা এবং ছুটির দিন সম্পর্কে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে থাকেন।

গবেষণায় সহায়তা করেছেন, এমন তরুণদের মধ্যে প্রতি ১০ জনে ১ জন জানিয়েছেন, ইতোমধ্যেই তাঁদের কাছে নিজেদের বিষাদময় লাগতে শুরু করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৮ থেকে ২৪ বছর বয়সী তরুন-তরুণীদের মধ্যে ১৬ শতাংশই মনে করেন মিথ্যা বলতে বলতে ইতোমধ্যেই তাঁদের মস্তিষ্ক আক্রান্ত হতে শুরু করেছে।

তাঁদের অনেকেই ডিজিটাল অ্যামনেশিয়ায় ভুগতে শুরু করে যার ফলে তাঁরা সবকিছু নিজেদের মত করে ভাবতে শুরু করে এবং প্রকৃত সত্যই ভুলতে শুরু করে। গবেষণায় আর দেখা গিয়েছে, তাঁদের মধ্যে প্রায় ৬৮ শতাংশ কোন ঘটনা সম্পর্কে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জানাতে গেলে একেবারে খোলামেলাভাবেই মিথ্যা বলে।

এই ধরণের ঘটনা যখন একের পর এক হতে থাকে, তখন নিজের কাছে নিজেকে অপরাধী মনে হতে থাকে এবং আত্মসম্মানবোধ কমে যায়। আর এর ফলে দেখা দিতে পারে দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়াসহ আরও নানা সমস্যা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: