শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «  

`নির্বাচন ও সংলাপের উদ্যোগ না নেয়া পর্যন্ত অবরোধ চলবে’



2. roiqul islam miahনিউজ ডেস্ক::
আওয়ামী লীগের প্রতি উদ্দেশ্য করে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন ও সংলাপের উদ্যোগ না নেয়া পর্যন্ত চলমান অবরোধ কর্মসূচি চলবে বলে জানান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম মিয়া।
রোববার রাতে গুলশানের অবরুদ্ধ কার্যালয়ে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে বেরিয়ে এসে অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের কাছে দলের চেয়ারপারসনের এই অবস্থানের কথা জানান তিনি।

রফিকুল ইসলাম মিয়া বলেন, উনি (খালেদা জিয়া) আমাদের বলেছেন, সব দলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের দাবির বিষয়ে সংলাপের উদ্যোগ সরকার না নেয়া পর্যন্ত চলমান আন্দোলনের কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে। শান্তিপূর্ণভাবে এই কর্মসূচি আপনারা চালিয়ে যাবেন।
রফিকুল ইসলাম মিয়া বলেন‘আমরা আশা করি, সরকারের শুভবুদ্ধির উদয় হবে। সংকট সমাধানে বেগম খালেদা জিয়ার দেয়া প্রস্তাবের প্রতি সাড়া দিয়ে আলোচনার উদ্যোগ নেবেন।

এ সময় দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ করে রাখার কঠোর সমালোচনা করে রফিকুল ইসলাম মিয়া বলেন, পুলিশি ঘেরাও অবস্থায় একজন মানুষ সেইভ থাকেন। সরকার বলেছে, কার্যালয়ে পুলিশ দিয়ে বেগম জিয়ার নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। এরকম নিরাপত্তা বেষ্টনির মধ্যে আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও অবরুদ্ধ কার্যালয়ে বিষাক্ত পিপার স্প্রে ছোড়া হয়েছে। এরকম পুলিশি সেইফ কাস্টডির মধ্যে এই পিপার স্প্রে নিক্ষেপ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি, এর মাধ্যমে সরকার বেগম জিয়ার সব অধিকার কেড়ে নিয়েছে। তাকে কোথাও যেতে দেয়া হচ্ছে না। এটা পুরোপুরি মানবাধিকার লঙ্ঘন। সোমবার আওয়ামী লীগকে সমাবেশ করতে দেয়ার সমালোচনা করে রফিকুল ইসলাম মিয়া বলেন, উনারা সরকারে আছে, সভা-সমাবেশ করতে পারবে। আর আমরা পারব না। এটা কী ধরনের গণতন্ত্র? এখানে এক ব্যক্তির শাসন চলছে।’

ভারতীয় জনতা পার্টির প্রেসিডেন্ট অমিত শাহ’র সঙ্গে টেলিফোনে আলাপের বিষয়ে সৃষ্ট বিভ্রান্তি সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রফিকুল ইসলাম মিয়া বলেন, আমরা এ বিষয়ে ম্যাডামকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম। তিনি (বেগম জিয়া) বলেছেন, উনার সঙ্গে কথা হয়েছে।’
পুলিশি ঘেরাও অবরুদ্ধ অবস্থাকে গৃহবন্দি বলবেন কিনা প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, তাকে বন্দি করে রাখা হয়েছে। এভাবে পুলিশ ঘেরা করে রাখা হলে, এটা গৃহবন্দি কেন বলবেন।

উল্লেখ্য, গত ৩ জানুয়ারি সাড়ে ১১টা থেকে গুলশানের কার্যালয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন অবরুদ্ধ হওয়ার ৮ম দিনে দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরামের তিন সদস্য খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে এলেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: