বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক ইজিএনের নতুন সভাপতি, অনুরূপ সম্পাদক  » «   ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «  

তারেক রহমানের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় ১০৩৭ জন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকের উদ্বেগ



imagesনিউজ ডেস্ক :: বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বাংলাদশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক হাজার ৩৭ জন শিক্ষক।
৯ জানুয়ারি শুক্রবার বিকেলে যৌথ এক বিবৃতিতে শিক্ষকরা রাজধানীর তেজগাঁও থানায় দায়ের করা এ মামলাকে হাস্যকর উল্লেখ করে অবিলম্বে তা প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছেন।
বিবৃতিতে শিক্ষকগণ বলেন, একজন রাজৈনিতক নেতার গণমাধ্যমে প্রচারিত আন্দোলনের আহ্বান নিয়ে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হবে, এটা দু:খজনক। কোনো স্বাভাবিক ও গণতান্ত্রিক সরকার এমন কান্ড ঘটাতে পারে না।
এটাকে একজন রাজনৈতিক নেতার রাজনৈতিক মত প্রকাশ, বাকস্বাধীনতা এবং আন্দোলনের অধিকারকে কেড়ে নেয়ার নগ্ন ষড়যন্ত্র অভিহিত করে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
তারা বলেন, জাতিসংঘ সহ বিশ্বের অন্য সব আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানে বাংলাদেশের স্বাক্ষর করা হিউম্যান রাইটস চুক্তিগুলোর প্রতি সম্মান দেখিয়ে, বাংলাদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় রাজনৈতিক নেতাদের বাকস্বাধীনতার গুরুত্ব অনুধাবন করে, নাগরিকদের রাজনৈতিক ও বাকস্বাধীনতা বিবেচনায় অবিলম্বে এই ভিত্তহীন, হাস্যকর রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।
বিবৃতিদাতাদের মধ্যে রয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১জনসহ রাজশাহী, চট্টগ্রাম, জাহাঙ্গীরনগর, সিলেট শাহজালাল, খুলনা, বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম, ইসলামী নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, বিএসএমএমইউ, বিএসএমকৃবি এবং বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়সহ এক হাজার ৩৭ জন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক।
বিবৃতিতে তারা আরো বলেন, বাংলাদেশের নাগরিক এবং চিন্তাশীল ব্যক্তি হিসেবে আমরা একজন রাজনৈতিক নেতার মত প্রকাশের স্বাধীনতা কেড়ে নেয়ার এ উদ্যোগে অত্যন্ত মর্মাহত এবং উদ্বিগ্ন। একজন নাগরিক এবং রাজনৈতিক নেতার ফ্রিডম অব স্পীচ-এ রেসট্রিকশন আরোপের উদ্দেশ্যমূলক এবং বেআইনি পদক্ষেপের বিষয়ে বাংলাদেশের জনগণ, সরকারি কর্তৃপক্ষ এবং বিশ্ব সম্প্রদায়ের কাছে আমাদের পর্যবেক্ষণ এবং উদ্বেগের বিষয়টি তুলে ধরছি।
শিক্ষকগণ বলেন, গত ৮ জানুয়ারি বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যমূলকভাবে ভিত্তিহীন অভিযোগ এনে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়ের করা হয়েছে। রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় যে অভিযোগ আনা হয়েছে আইনের দৃষ্টিতে এটা হাস্যকর। একজন রাজনৈতিক নেতা তাঁর দলের কর্মী-সমর্থক এবং দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বক্তৃতা দিয়েছেন, তা গণমাধ্যমে প্রচারিত হয়েছে। এতে কোনো রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হওয়ার সুযোগই নাই। এমন হাস্যকর রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়েরের মাধ্যমে অবৈধ সরকার বাংলাদেশ রাষ্ট্রকেই হাস্যকর বানাতে চাচ্ছে। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, দখলদার সরকার ও আওয়ামী লীগ তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলা দেয়ার হাস্যকর প্রতিযোগিতায় নেমেছে।
বিবৃতিতে স্বাক্ষরকারী শিক্ষকরা হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. জেড. এন. তাহমিদা বেগম, অধ্যাপক ড. তাজমেরী এস এ ইসলাম, অধ্যাপক ড. আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, অধ্যাপক ড. আবদুর রশিদ, অধ্যাপক ড. মোঃ মাইমুল আহসান খান, অধ্যাপক প্রফেসর ড. আবদুল আজিজ ড. মোহাম্মদ আল মোজাদ্দেদী আলফেছানী, অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মেজবাহ উল ইসলাম, ড. মোঃ মোর্শেদ হাসান খান, ড. মো: জসিম উদ্দিন, ড. গোলাম রব্বানী, ইস্রাফিল প্রামাণিক রতন প্রমুখ।
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. সিদ্দিক আহমেদ চৌধুরী, ড. মোহাম্মদ মোশারফ হোসেন, ড. শফিকুল ইসলাম, ড. আবদুল মান্নান, মোহাম্মদ আলম চৌধুরী, ড. মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন, ড. মোঃ আমান উল্লাহ প্রমুখ।
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. খন্দকার মুস্তাহিদুর রহমান, প্রফেসর মোহাম্মদ মাফরুহী সাত্তার, প্রফেসর ড. মুহাম্মদ কামরুল আহসান, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আমির হোসেন ভুঁইয়া প্রমুখ।
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রফেসর ড. মোঃ রেজাউল করিম, শরীফ মোহাম্মদ খান, অধ্যাপক ড. হারুন-অর রশীদ প্রমুখ।
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রফেসর এম. রফিকুল ইসলাম, প্রফেসর মুহাম্মদ আজাহার আলী, প্রফেসর মোস্তাফা কামাল আকন্দ, প্রফেসর এম নজরুল ইসলাম, প্রফেসর মামনুনুল কেরামত প্রমুখ।
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ড. মোহাম্মদ ইমদাদুল হুদা, মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ তানজিল হোসেন প্রমুখ।
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় কুষ্টিয়ার অধ্যাপক ড. মোঃ তোজাম্মেল হোসেন, জনাব আ ফ ম আরিফুর রহমান (নোবিপ্রবি), প্রকৌশলী সাব্বির মোস্তফা খান (বুয়েট), অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম (বিএসএমএমইউ), অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ চৌধূরী (শাবিপ্রবি), প্রফেসর ড. আবদুল করিম (বিএসএমকৃবি), ড. মোঃ গোলাম আরিফ কেনেডি (বাকৃবি) প্রমুখ।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১ জন শিক্ষক হলেন- অধ্যাপক ড. আমিনুর রহমান মজুমদার, অধ্যাপক. ড. মো. সিরাজুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. সদরুল আমিন, অধ্যাপক ড. আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, অধ্যাপক সৈয়দ আবুল কালাম আজাদ, অধ্যাপক, অধ্যাপক ড. তাজমেরী এস এ ইসলাম, অধ্যাপক ড. মোঃ আখতার হোসেন খান, অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. লায়লা নূর ইসলাম, ড. মোহাম্মদ ছিদ্দিকুর রহমান খান, অধ্যাপক ড. শামসুদ্দিন আহমদ, অধ্যাপক ড. দিল রওশন জিন্নাত আরা নাজনীন, অধ্যাপক হোসনে আরা বেগম, অধ্যাপক ড. শাহিদা রফিক, অধ্যাপক ড. আবদুর রশিদ, অধ্যাপক ড. মোঃ নুরুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. মোর্শেদ হাসান খান, অধ্যাপক ওবায়দুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. আবুল হাসনাত, অধ্যাপক লুৎফুর রহমান, অধ্যাপক আ কা ফিরোজ আহমদ, অধ্যাপক ড. মামুন আহমেদ, অধ্যাপক ড. মোঃ সাইফুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. আবদুল আজিজ, অধ্যাপক ড. সুকোমল বড়ুয়া, জনাব মোহাম্মদ সফিউল্ল্যাহ, অধ্যাপক তাহমিনা আখতার, অধ্যাপক ড. মোঃ আবদুস সাত্তার, অধ্যাপক ড. মোঃ আবুল বাশার, অধ্যাপক ড. মোঃ মোজাম্মেল হক, জনাব ইসরাফিল প্রামাণিক, অধ্যাপক ড. শেখ নজরুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক মোঃ আব্দুল হাকিম, অধ্যাপক মোঃ আতাউর রহমান মিয়াজী, অধ্যাপক মোঃ নুরুল ইসলাম, অধ্যাপক মোঃ মাহফুজুল ইসলাম, অধ্যাপক মোঃ মুজাহিদুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, অধ্যাপক আবু আহমেদ, অধ্যাপক ড. ছিদ্দিকুর রহমান নিজামী, অধ্যাপক আহমেদ জামাল আনোয়ার, অধ্যাপক নাফিসা জামাল, অধ্যাপক এ এস এম মহিউদ্দিন, অধ্যাপক এ বি এম শহিদুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. সৈয়দ আলী আহসান, অধ্যাপক ড. নেভিন ফরিদা, অধ্যাপক ড. বোরহান উদ্দীন খান, অধ্যাপক ড. মুসলেহ উদ্দিন তারেক, অধ্যাপক ড. মোঃ আব্দুল কাদের, মোঃ মাজহারুল আনোয়ার, অধ্যাপক ড. মোঃ আবদুর রব, অধ্যাপক ড. মোঃ আবদুল কাইয়ুম, অধ্যাপক ড. মোঃ আবুল বাসার, অধ্যাপক ড. মোঃ আশরাফুল ইসলাম চৌধুরী, অধ্যাপক ড. মোঃ আনিছুর রহমান খান, অধ্যাপক ড. মোঃ আমিনুল ইসলাম ভূইয়া, অধ্যাপক ড. মোঃ এনামুল হক, অধ্যাপক ড. মোঃ এমরান কাইয়ুম, অধ্যাপক ড. মোঃ মাহফুজুল হক, অধ্যাপক ড. মোঃ কামরুল এহছান, অধ্যাপক ড. মোঃ খলিলুর রহমান, অধ্যাপক ড. মোঃ সায়েদুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. মোঃ সুলতান হোসেন, অধ্যাপক ড. মোঃ হায়দার আলী, অধ্যাপক মোঃ আতাউর রহমান বিশ্বাস, অধ্যাপক ড. খোন্দকার মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক ড. আবু মোহাম্মদ শফিকুল আলম, অধ্যাপক ড. আব্বাছ আলী খান, অধ্যাপক ড. আমিনুল ইসলাম ভূইয়া, অধ্যাপক ড. মোঃ খলিলুর রহমান, অধ্যাপক ড. নুরজাহান সরকার, অধ্যাপক ড. বাবুনা ফায়েজ, অধ্যাপক ড. এ. কে. এম. নজরুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. এ. এম. সরওয়ার উদ্দিন চৌধুরী, অধ্যাপক ড. এ. এস. এম. মহিউদ্দিন, অধ্যাপক ড. মোশারফ হোসাইন ভূঁইয়া, অধ্যাপক ড. এ.এ. মাহবুব উদ্দিন চৌধুরী, অধ্যাপক ড. এস. এম. মোস্তফা আল-মামুন, অধ্যাপক শামীম শামছি, অধ্যাপক ড. মাহমুদ ওসমান ইমাম, অধ্যাপক ড. মুস্তাফিজুর রহমান, অধ্যাপক ড. রাজিয়া বেগম, অধ্যাপক ড. শাহনাজ হক হুসেন, অধ্যাপক ড. সাহিদা ইসলাম, অধ্যাপক ড. ছগীর আহমেদ, অধ্যাপক ড. জাহিদুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. সিরাজুল হক, অধ্যাপক ড. দিলিপ বড়–য়া, অধ্যাপক জি এম চৌধুরী, অধ্যাপক ড. মোঃ মেহেদী মাসুদ, ড. মোঃ আনোয়ারুল আজিম আকন্দ, অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মেজবাহ উল ইসলাম, অধ্যাপক ড. মোঃ আব্দুল মজিদ, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন, অধ্যাপক ড. মোঃ আবদুল করিম, অধ্যাপক ড. মোঃ আবদুস সালাম, অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান, অধ্যাপক ড. মোঃ আসলাম হোসেন, ড. মোঃ নাদিরুজ্জামান মন্ডল, ড. মোঃ শাহাবুল আলম, অধ্যাপক ড. মোঃ হাসান উজ্জামান, অধ্যাপক ড. মোঃ জাকির হোসেন খান, ড. আফরোজ সুলতানা চ্যামন, অধ্যাপক ড. আবদুস সালাম, ড. আরিফ বিল্লাহ,অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান, অধ্যাপক ড. এ এইচ এম জুলফিকার আলী, অধ্যাপক ড. মোঃ সাইফুল ইসলাম, ড. মু: মুছলেহ উদ্দীন, অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আবদুল লতিফ, ড. মুহাম্মদ ইফসুফ, ড. মুহাম্মদ মুসলেহ উদ্দিন, অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ শামছুল আলম, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আল মোজাদ্দেদী আলফেছানী, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, ড. শাকিল উদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক ড. মুর্শিদা বেগম, মৌটুসী তানহা, মোহাম্মদ আজহারুল ইসলাম, মোহাম্মদ শরীফুর রহমান, ড. মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম, মোহাঃ জাহাঙ্গীর আলম, মোঃ আবুল কায়সার, ড. মোঃ রুহুল আমিন, অধ্যাপক ড. মোঃ মাইমুল আহসান খান, মোঃ রফিকুল ইসলাম, মোঃ সফিকুল ইসলাম, সেহেলী পারভীন, অধ্যাপক ড. গোলাম রব্বানী, দেবাশীষ পাল, মোহাম্মদ দাউদ খান, মোহাম্মদ আবু ইউসুফ, মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ, মোহাম্মদ ইলিয়াস, মোহাম্মদ মামুন চৌধুরী, মোহাম্মদ ওমর ফারুক, ড. মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম, ড. মোহাম্মদ হাফিজ উদ্দিন ভূইয়া, ড. মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, ড. মোঃ বেলাল হোসেন, মোঃ মেহেদী হাসান খান, মোঃ মোশাররফ হোসেন, মোঃ শেখ ফরিদ, ড. মোঃ গোলাম রব্বানী, অধ্যাপক ড. মোঃ আবদুল কাদির, ড. মোঃ আবুল কালাম সরকার, মোঃ আলমগীর হোসেন, মোঃ আজহারুল ইসলাম, জনাব মোঃ তাজুল ইসলাম, জনাব মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ নুরুল ইসলাম,ড. মোঃ রবিউল ইসলাম, ড. নাসরীন সুলতানা, ড. সালমা বেগম, মোঃ রবিউল হক, মোঃ লুৎফর রহমান, মোঃ কুতুব উদ্দিন, ড. মোঃ সাইফুল ইসলাম, মোঃ সাহাবুল আলম, মোঃ জসিম উদ্দীন, মোঃ মোস্তফা কামাল, আ ন ম সালাহ উদ্দিন, আবদুস সালাম, জনাব মোঃ আলমগীর হোসেন সম্রাট, আবু আসাদ চৌধুরী, জনাব আল-আমিন, অধ্যাপক ড. সেলিম রেজা, জনাব আমিরুস সালাত, ড. নাজমুজ্জামান ভূইয়া, নুসরাত ফাতেমা, উসমিতা আফরোজ, এ টি এম মোস্তফা কামাল, মালেকা পারভীন, মাহবুব কায়সার, ড. মুহাম্মদ গোলাম রব্বানী, মুহাম্মদ নুরে আলম, ড. মুহাম্মদ রুহুল আমিন, মুহাম্মদ জহিরুল ইসলাম, জনাব মোঃ নুরুল আমিন, ড. যুবাইর মোহাম্মদ এহসানুল হক, ওমর ফারুক, শায়লা আহমেদ, কাওসার হোসেন টগর, ড.কাজী মোস্তাক গাউসুল হক, কাজী মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান, শাহিন আহমেদ চেীধুরী, সাইফুদ্দিন আহমেদ, ড. হাফিজ মুজতবা রিজা আহমাদ, জনাব মোঃ সাইফুল্লাহ, ড. মো. মাসুদ আলম, জনাব এস এম শামীম, জনাব মুহাম্মদ মামুন চৌধুরী, ড. মো: আরিফুর রহমান, ড. মো; আবদুস সালাম আকন্দ, মিসেস সাবরিনা শাহনাজ, জনাব মোঃ আনোয়ার হোসেন, ড. মো: শাহনুর হুসাইন এবং প্রফেসর ড. আনিসুর রহমান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: