মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

‘গুম-খুন’ হওয়া নেতাকর্মীদের তালিকা আন্তর্জাতিক মহলে পাঠিয়েছে বিএনপি



36. bnpনিউজ ডেস্ক::
অবরোধ কর্মসূচির শুরু থেকে এ পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গুম-খুনের শিকার বিরোধী নেতাকর্মীদের একটি তালিকা বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাসহ বিদেশি দূতাবাসে পাঠিয়েছে বিএনপি। আগামী সাপ্তাহে ইউরোপীয় ইউনিয়নের একটি উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদল বাংলাদেশের সাম্প্রতিক মানবাধিকার পরিস্থিতি দেখতে ঢাকায় আসছে। এরকম প্রেক্ষাপটে বিএনপির পক্ষ থেকে এই তালিকা দেয়া হলো বলে দায়িত্বশীল একাধিক সূত্র জানিয়েছে। বিএনপি আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলোর দৃষ্টি আকর্ষণ করে এ বিষয়ে তাদের সরেজমিনে তদন্ত করার জন্য অনুরোধও জানিয়েছে।
রবিবার এ প্রসঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী অ্যাডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস সাংবাদিকদের বলেন, সারাদেশে যৌথ অভিযানের নামে গত একমাসে বিএনপিসহ ২০দলীয় জোটের ১৮ হাজার নেতা-কর্মী, সাধারণ মানুষ গ্রেপ্তার হয়েছে। নেতা-কর্মীর গ্রেপ্তারের পাশাপাশি কথিত বন্দুকযুদ্ধে সাজানো নাটকের মাধ্যমে হত্যাকাণ্ডে ঘটনা ঘটানো হয়েছে।

সরকারের কঠোর সেন্সরশীপের মধ্যেও এ বিষয়ে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকেও খবর প্রকাশিত হয়েছে। তা থেকেই এই প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হয়েছে। ৫ জানুয়ারির পর কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা বিশেষ করে বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের কথিত ‘ক্রসফায়ার’, ‘বন্দুকযুদ্ধ’ ও ট্রাকের নিচে ফেলে হত্যাকাণ্ডের পাশাপাশি পুলিশি হেফাজতে নেতা-কর্মীদের পায়ে গুলি করে পঙ্গু করার কথাও উল্লেখ করেন শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস।
আন্তর্জাতিক মহলের কাছে প্রেরিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ৫ জানুয়ারি প্রতিদ্বন্দ্বিতাহীন নির্বাচনে বর্ষপূর্তি উপলক্ষে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ পালনে বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোটের নেতা-কর্মীরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, র‌্যাব, পুলিশসহ সাদা পোশাকে ক্ষমতাসীন দলের ক্যাডারদের হাতে ৭৮ জন প্রাণ হারিয়েছে, যার মধ্যে বিরোধী দলের নেতা-কর্মীর সংখ্যা ৪৩ জন। এসব হত্যাকাণ্ডের মধ্যে রংপুর, কুড়িগ্রাম, রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী, বরিশালে উজিরপুর, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন জেলার নেতা-কর্মী ও জনসাধরণ রয়েছে।

গত এক মাসে ১৮ হাজার নেতা-কর্মী, সাধারণ মানুষ গ্রেপ্তার হয়েছে। মামলায় আসামি করা হয়েছে ৭ লাখের অধিক নেতা-কর্মী। এর বাইরে মামলায় অজ্ঞাত সংখ্যক লোককে আসামি তালিকায় যুক্ত করা হয়েছে। অজ্ঞাত এই তালিকায় পরবর্তিতে গ্রেপ্তারকৃত বিরোধী দলীয় নেতা-কর্মীদের আসামি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। তালিকায় উল্লেখিত এ পর্যন্ত বিরোধী দলের নেতা-কর্মী-সমর্থক যারা হত্যার শিকার হয়েছেন তারা হলেন, নাটেরের তেবাড়িয়ার রাকিব মুন্সি( বিবিএ সন্মান), রায়হান আলী (ছাত্র দল), রাজশাহীর মহানগরের আইনুর রহমান মুক্ত (বিএনপি), রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহাবুদ্দিন (ইসলামী ছাত্র শিবির), বানেশ্বরের মজিরউদ্দীন(বিএনপি), গোদাগাড়ীর মো. এসলাম (যুবদল), বিনোদপুরের নুরুল ইসলাম শাহিন( কলেজ শিক্ষক), চাঁপাইনবাবগঞ্জের কানসাটের জমসেদ আলী( বিএনপি), নবাবগঞ্জের আসাদুল্লাহ তুহিন ( ইসলামী ছাত্র শিবির), শিবগঞ্জের মতিউর রহমান(ছাত্র দল), নোয়াখালীর চৌহমুহনির মিজানুর রহমান(যুব দল), মহসিন উদ্দিন (ছাত্রদল), বেগমগঞ্জের মো. সোহেল(যুব দল), সোনাইমুড়ির মোরশেদ আলম পারভেজ(ছাত্র দল), চুয়াডাঙ্গার শংকরচন্দ্রপুরের সিরাজুল ইসলাম (বিএনপি), নড়াইলের স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর ইমরুল কায়েস ( জামায়াতে ইসলাম), ঢাকার খিলগাওয়ের নুরুজ্জামান জনি (ছাত্র দল), ঢাকা কলেজের এমদাদ উল্লাহ (ইসলামী ছাত্র শিবির), আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকা ক্যাম্পাসের ছাত্র আরিফুল ইসলাম মুকুল( ছাত্র দল), মাতুয়াইলের সাখাওয়াত হোসেন রাহাত (ছাত্র দল), মুজাহিদুল ইসলাম জাহিদ, ভাসানটেকের আল আমীন, আগারগাঁওয়ের জসিমউদ্দিন (ইসলামী ছাত্র শিবির), সদর উপজেলার সোলাইমান উদ্দিন ( ছাত্র দল), চট্টগ্রামের লোহাগড়ার সাকিবুল ইসলাম(ইসলামী ছাত্র শিবির), রাঙ্গুনিয়ার জিল্লুর রহমান ভান্ডারী( যুব দল), ভোলা সদরের আবুল কালাম (শ্রমিক), ঝিনাইদহের শৈলকুপার সুলতান আলী বিশ্বাস (শ্রমিক), চরফ্যাশনের হারুন অর রশীদ (ছাত্র দল), সাতক্ষীরার তালা‘র রফিকুল ইসলাম (সাধারণ জনতা), রামনগরের শহীদুল ইসলাম (জামায়াতে ইসলাম), ময়মনসিংহের নান্দাইলের আসিফ পারভেজ টুকুন(ছাত্র দল), যশোরের চৌগাছার আবদুস সামাদ মোল্লা (বিএনপি), মনিরামপুরের মো. ইউসুফ (যুবদল), দুর্গাপুরের মো. লিটন (যুব দল), সদরের রাজু ( বিএনপি) সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার সাইদুল ইসলাম(জামায়াতে ইসলাম),কুমিল্লা সদর দক্ষিনের কালা স্বপন(বিএনপি), চৌদ্দগ্রামে সাহাবুদ্দিন পাটোয়ারি (ইসলামী ছাত্র শিবির), পিরোজপুরের বাচ্চু মিয়া (জামায়াতে ইসলাম) প্রমুখের নাম ও ঠিকানার পাশাপাশি হত্যার বিবরণ দেয়া হয়েছে। অপহরণ ও গুমের বিষয়ে বলা হয়েছে, ২০ দলীয় জোটের অনেক নেতা-কর্মীর সন্ধান মিলছেন না। তাদের পরিবারের সদস্যরাও নানাভাবে খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। কিন্তু নিরাপত্তার দিকটা বিবেচনায় রেখে ওই তালিকা দেয়া হয়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: