শুক্রবার, ১৪ অগাস্ট ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «  

খালেদা জিয়ার জন্য মাছ, মুরগী, তরকারি



4. khaledaনিউজ ডেস্ক::
নিজের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ষষ্ঠ রাত আর পঞ্চম দিনের মতো ‘অবরুদ্ধ’ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জন্য কাঁচাবাজর নিয়ে এসেছেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রাক্তন কয়েকজন সাংসদ।
এদের মধ্যে বেশ কয়েকজন রয়েছেন যারা শনিবার রাত থেকে বিএনপি প্রধানের সঙ্গে ছিলেন। তবে সোমবারের পর অনেকেই কার্যালয় থেকে বের হয়ে গেছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মহিলা দলের সভাপতি নুরে আরা সাফা, বিলকিস জাহান শিরিন, নুরজাহান বেগম, লাইলী বেগম, সুলতানা আহমেদ, ইয়াসমিন আরা, আঞ্জুয়ানা রহমান, ফরিদা ইয়াসমিন এক ভ্যান ভর্তি মাছ, মুরগী, কাঁচাবাজর নিয়ে কার্যালয়ের পশ্চিম পাশে সামনে আসেন।

এ সময় সেখানে দায়িত্বরত পুলিশ তাদের আটকে দেয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে জানিয়ে দেয়া হয় কোনো প্রকার কাঁচাবাজার নিয়ে ভেতরে যাওয়া যাবে না। তবে রান্না করা খাবার ভেতরে নিয়ে যাওয়া যাবে।

নিয়ে আসা কাঁচা-তরকারি মধ্যে ছিল মুরগী, রুইমাছ, আলু, লাউ, কাঁচামরিচ, ধনেপাতা, ফুলকপি, বাধাকপি, লালশাক, লাউশাক, টমেটো, আপেল, পেঁপে, পেয়ারা, বাতাবিলেবু, গাজর, দই, মিষ্টি। পরে পুলিশের অনুমতি নিয়ে তিনজন কার্যালয়ের ভেতরে প্রবেশ করেন। কার্যালয় থেকে বেরিয়ে সুলতানা আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের খাবার-দাবারে সমস্যা হচ্ছে। এই ধারণা থেকে উনার জন্য কিছু কাঁচা তরকারি নিয়ে এসেছিলাম। কিন্তু পুলিশ খাবার প্রবেশ করতে দেয়নি। তারা বলেছে, রান্না করা খাবার নিয়ে আসতে। আমরা এখন রান্না করা খাবার নিয়ে আসবো।’

দশম সংসদ নির্বাচনের বছরপূর্তির দিন ৫ জানুয়ারি বিএনপি ‘গণতন্ত্র হত্যা’ দিবস হিসেবে পালনের ঠিক দুদিন আগে শনিবার রাতে নিজের রাজনৈতিক কার্যালয়ে পুলিশ বেষ্টনীতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন খালেদা জিয়া। সেই থেকে এখন পর্যন্ত সেখানেই অবস্থান করছেন তিনি। কার্যালয়ের দ্বিতীয় তলায় নিজের চেম্বারে অনেকটা শুয়ে-বসে সময় কাটছে বিএনপি চেয়ারপারসনের। মাঝেমধ্যে দলের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান ও অন্যান্য নেত্রীদের সঙ্গে গল্প-এভাবেই কাটছে বেশিরভাগ সময়।
গত সোমবার বিকেলে ‘গণতন্ত্র হত্যা’ দিবসে জনসভা ও কালো পতাকা মিছিলে অংশ নেওয়ার জন্য বের হলে পুলিশের বাধার মুখে বের হতে পারেননি। পরে সেখান থেকেই পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করেন তিনি।বর্তমানে খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে তার সঙ্গে রয়েছেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেসসচিব মারুফ কামাল খান সোহেল, বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, কার্যালয়ে কর্মকর্তা এম এ কাইয়ুম, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান, শামসুদ্দিন দিদার, শামসুল আল আমীন ডিউ।

এ ছাড়া অফিস সহকারী ও চেয়ারপারসনের নিরাপত্তা স্কোয়াডের সদস্যরা রয়েছেন।
এ দিকে গত সোমবার বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে পেপার স্প্রে ব্যবহারের পর খালেদা জিয়ার যে অসুস্থতা দেখা দিয়েছিল তা এখনো রয়েছে বলে জানিয়েছেন তার প্রেসসচিব মারুফ কামাল খান সোহেল।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: