বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

ক্ষোভ আর হতাশায় হল ছেড়েছে ইবি শিক্ষার্থীরা



15. IBনিউজ ডেস্ক::
চরম ক্ষোভ আর হতাশায় প্রশাসনের নির্দেশে আবাসিক হলসমূহ ছেড়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। দীর্ঘ ৩৭ দিন ক্যাম্পাস বন্ধ থাকার পর গত ৭ জানুয়ারী বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার দুইদিন পরেই গত শুক্রবার রাতে জরুরি সিন্ডিকেট সভার মাধ্যমে আবারো অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্যাম্পাস বন্ধ ঘোষণা করে প্রশাসন। ক্ষুদ্ধ হয়ে শনিবার সকালে নির্ধারিত সময়ের পূর্বেই হল ত্যাগ করেন শিক্ষার্থীরা।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ নভেম্বর বাস চাপায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নিহতের ঘটনাকে কেন্দ্র করে অনির্দিষ্ট কালের জন্য ক্যাম্পাস বন্ধ ঘোষনা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। দীর্ঘ ৩৭ দিন ক্যাম্পাস বন্ধ থাকার পর গত ৭ জানুয়ারী বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেয়া হয়। দুইদিন যেতে না যেতেই গত শুক্রবার রাতে জরুরি সিন্ডিকেট সভার মাধ্যমে আবারো অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্যাম্পাস বন্ধ ঘোষণা করে প্রশাসন।

প্রশাসনের নির্দেশে শনিবার সকাল ১০টার মধ্যেই আবাসিক হল ছেড়ে যান শিক্ষার্থীরা । ক্যাম্পাস ত্যাগ করার সময় তাদের চরম হতাশর ছায়া দেখা গেছে । ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অধিকাংশ শিক্ষার্থী । ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী নাইমুর রহমান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘দীর্ঘ ছুটি শেষে বিশ্ববিদ্যালয় খুলার মাত্র দুই দিন পর আবারো বন্ধ ঘোষনা করে শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবনকে চরম বির্পযয়ের মূখে ঠেলে দিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তাব্যক্তিরা শিক্ষার্থীদের কথা কখনো চিন্তা না করে ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থ করতে এরকম হটকারি মূলক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. আবদুল হাকিম সরকার বলেন, ‘অনিবার্যকারণবশত এবং শিক্ষার্থীদের বৃহত্তর স্বার্থে সিন্ডিকেট সভার সাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস পরীক্ষা বন্ধ ও শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়েছে‘। তবে অফিস সমূহ স্বাভাবিক ভাবে চলবে বলে তিনি জানান।

এদিকে ২০ দলীয় জোটের ডাকা অবরোধের কারনে সড়কে বাস চলাচল না করায় শিক্ষার্থীরা চরম দূর্ভোগের শিকার হয়েছেন বলে জানা গেছে। ইঞ্জিন চালিত নসিমন ও করিমনে করে ক্যাম্পাস ত্যাগ করতে দেখা গেছে শত শত শিক্ষার্থীদের । এতে করে চরম দূর্ভোগের হতে হয়েছে তাদের।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: