বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক আইএজে কমিটির সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «  

ওসমানীনগরে ডাকাতি আতংক



pahara-400x221নিউজ ডেস্ক :: সিলেটের ওসমানীনগরে ডাকাতি আতংকে অন্তত ৩০ গ্রামের মানুষ নির্ঘুম রাতযাপন করে পাহারা দিয়েছেন। শুক্রবার দিবাগত রাতে এলাকার ডাকাতরা হানাদেয়। এমন পরিস্থিতিতে চরম আতংকগ্রস্থ রয়েছেন এলাকাবাসী। বৃহস্পতিবার রাতেও ডাকাতরা একাধিক গ্রামে হানা দিয়েছিল বলে জানা গেছে।

জানা যায়, শুক্রবার মধ্য রাতে রশিদপুর এলাকায় এক প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে লোকজন প্রতিরোধ গড়ে তুলে। এসময় ধাওয়া খেয়ে ডাকাতরা ওসমানীনগরে প্রবেশ করে। খবর পেয়ে ওসমানীনগর থানা পুলিশ এলাকার জনপ্রতিনিধিসহ সচেতন নাগরিকদের ফোন করে সতর্ক করে দিলে প্রতিটি এলাকার মসজিদে মাইকযোগে ডাকাত প্রবেশের বিষয়টি জানানো হয়। এতে এলাকার লোকজন সমবেত হয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলে এবং রাত জেগে পাহারা দেয়।

গোয়ালাবাজার ইউপি চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মানিক বলেন, এলাকায় ডাকাত প্রবেশের বিষয়টি ফোন করে জানায় পুলিশ। এতে এলাকাবাসি সমবেত হয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলে এবং পাহারা দেয়।
ওসমানীনগর থানার ওসি মুরসালিন বলেন, ডাকাতরা রশিদপুর এলাকায় ব্যর্থ হয়ে ওসমানীনগরে প্রবেশ করার বিষয়টি জানতে পেরে জনপ্রতিনিধিসহ সচেতনমহলকে অবগত করি।

এদিকে, চলতি বছরের ৫ মাসে ওসমানীনগরে ৭টি ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে চলতি মাসে ২ দিনে তিনটি ডাকাতি ঘটনা ঘটে। গত ১৬ মে উপজেলার ব্রা‏হ্মণশাসন গ্রামস্থ আজিজুর রহমান এবং একই এলাকার ধন মিয়ার বাড়িতে হানা দিয়ে ডাকাতরা স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকাসহ প্রায় ২০লক্ষ টাকার মালামাল লুঠ করে। ১৮ মে নিজ কুরুয়া উত্তর পাড়া গ্রামের প্রবাসী নুরুল আম্বিয়া আওলাদের বাড়িতে হানা দিয়ে নগদ টাকাসহ দশ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুঠ করে। এ তিনটি ডাকাতির ঘটনায় গৃহকর্তাসহ ৪জন গুরুতর আহত হয়। ৭টি ডাকাতির ঘটনা ঘটলেও ঘটনাগুলোকে ডাকাতি না বলে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করেছে পুলিশ। তবে শেষ পর্যন্ত শনিবার ১৬মে ব্রা‏্হ্মণ শাসন এলাকার ঘটনায় ১টি ডাকাতির মামলা রুজু করেছে বলে জানিয়েছেন ওসি মুরসালিন। এমনকি অভিযান চালিয়ে ডিবি পুলিশের সহায়তায় এক ডাকাতকে আটক করলেও রহস্যজনক কারণে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।
ওসমানীনগরের তালিকাভূক্ত অনন্ত ৩০ জন ডাকাত জামিনে রয়েছে। যার কারণে প্রায়ই ডাকাতির ঘটনা ঘটছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: