সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «  

এবার নবীগঞ্জে সাত রঙের চা উদ্ভাবন



Josim uddin- 7clr teaনবীগঞ্জ সংবাদদাতা:
শ্রীমঙ্গলের রমেশের নীলকন্ঠ চা কেবিনে নয় এবার নবীগঞ্জের জসীম উদ্দিন উদ্ভাবন করলেন সাত রঙের চা, সাতটি স্তরে ! আর স্বাদটাও সাত রকমের। সাধারণ চা বানানোর রহস্য কমবেশি সবার জানা থাকলেও এই চা তৈরির রহস্য সাধারণের কাছে অজানা। সাধারণ চা থেকে এটিতে স্বাদেও রয়েছ ভিন্নতা।
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার ঐতিহ্য রমেশের সাতকালারের (রঙের) চা। গ্লাসের দিকে তাকালেই ভিন্ন রঙে চায়ের সাতটি স্তর দেখা যায়। দেশি বলেন আর বিদেশি বলনে শ্রীমঙ্গলে বেড়াতে গিয়ে সাত রঙের চা না খেয়ে ফিরছেন এমন মানুষ খুব কমই পাওয়া যাবে। এবার নবীগঞ্জেই উদ্ভাবন করা হল সাত রঙের চা। দীর্ঘপ্রচেষ্টার পর গতকাল নবীগঞ্জের জন্তরী গ্রামের জসীম উদ্দিন নামের ব্যক্তি সাত রঙের চা তৈরিতে সফল হয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: