সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «  

‘এক সপ্তাহের মধ্যে সব ঠিক হয়ে যাবে’



24. abul maalনিউজ ডেস্ক::
দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। তবে আাগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সব কিছু ঠিক হয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।
বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের সঙ্গে সাক্ষাতকালে ইইউ রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়াদোন এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন।
তবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘জবাবে আমি বলেছি যে, আমরাও উদ্বিগ্ন।’ তিনি আরো বলেন, ‘গত একটি বছর বেশ ভালই গেছে। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতি যে দীর্ঘায়িত হবে এটা আমি বুঝতে পারি নাই। তবে আাগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সব কিছু ঠিক হয়ে যাবে বলে আমি আশাবাদী।’
‘কীভাবে সব কিছু ঠিক হয়ে যাবে’ জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এটা আমার ব্যক্তিগত আশাবাদ।’
‘রাজনৈতিক যে কেনো ধরনের কর্মকন্ড অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলে’ এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘দেশের অর্থনীতির জন্য এগুলো নারকীয় (হ্যালিশ)।’ এ সময় বিএনপির কর্মকান্ডকে ‘স্টুপিড অ্যাকটিভিটি’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

‘ব্যবসায়ীরা হরতাল-অবরোধ বন্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলছেন এবং এ বিষয়ে আইন প্রণয়নের কথা বলছেন’ এ কথার জবাবে তিনি বলেন, ‘ভাল প্রস্তাব। চাইলে তারা আদালতে যেতেই পারেন। এটা একটা চাপ হবে। আমি তাদের সমর্থন দেব।’
ইইউ রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে অন্যান্য বিষয় নিয়ে আলোচনার প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, অন্যান্য সব বিষয়ে তারা ভাল কথা বলেছে। তবে একটি খারাপ খবর তারা দিয়েছে। সেটা হচ্ছে ইইউ’র অর্থায়নে পরিচালিত ‘স্ট্রেংদেনিং পাবলিক ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রাম’ (এসপিএমপি) তারা আর অব্যাহত রাখতে চায় না। এটা এ বছরই শেষ হয়ে যাবে।
এসপিএমপি’র প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, বাজেট প্রণয়ন ও ব্যয় সংক্রান্ত এটা একটি সংস্কার কর্মসূচি। এ ধরনের সংস্কার কর্মসূচি দীর্ঘমেয়াদে অব্যাহত থাকা উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: