বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

ইতিহাসের সর্বাপেক্ষা নৃশংশ ধর্ষণ !



30851আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের রাজধানী দিল্লির কাছাকাছি একটি শহরে মানসিক প্রতিবন্ধী এক মহিলাকে গণধর্ষণ করে হত্যা করার পর অভিযুক্তদের তন্ন তন্ন করে খুঁজছে পুলিশ।

রোববার বহু মহিলাসহ শত শত মানুষ রোতাক নামে শহরটির পাশে দিল্লিমুখি একটি মহাসড়ক অবরোধ করার পর হরিয়ানা রাজ্যের পুলিশ নড়েচড়ে বসেছে।

২৮ বছরের ঐ মহিলাকে পহেলা ফেব্রুয়ারি থেকে পাওয়া যাচ্ছিল না। এরপর বুধবার একটি খোলা মাঠে তার ছিন্নভিন্ন দেহ খুঁজে পাওযা যায়। ময়না তদন্তে নিশ্চিত করা হয় মৃত্যুর আগে ঐ মহিলা ধর্ষণের শিকার হয়।

ড এস কে ঢাটারাওয়াল নামে যে চিকিৎসক ময়না তদন্ত করেছেন, তিনি জানিয়েছেন মহিলার ওপর অমানবিক নির্যাতন চালানো হয়।

তার যৌনাঙ্গের ভেতর পাথরের টুকরো, ব্লেড, লাঠি ঢোকানো হয়। এমনকি তার হৃদপিণ্ড এবং ফুসফুসও পাওয়া যায়নি। স্থানীয় একজন সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা শশাঙ্ক আনন্দ বলেছেন, প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে এটা ধর্ষণ এবং হত্যার ঘটনা।

জানা গেছে কয়েকমাস মহিলাটি রোতাকে এসে তার বোনের কাছে ওঠে। স্থানীয় একটি হাসপাতালে তার চিকিৎসা হচ্ছিলো।

পুলিশ জানিয়েছে, নিখোঁজ হওয়ার চারদিন পর তার বোনের বাড়ি থেকে ১৮ কিমি দুরে তার মৃতদেহ পাওয়া যায়।

পুলিশ যথেষ্ট তৎপর নয় বলে অভিযোগ করেছেন নিহত মহিলার বোন।

এর আগে ২০১২ সালে দিল্লিতে চলন্ত বাসে এক মহিলাকে গণধর্ষণ করে হত্যার পর সারা ভারতজুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

সংবাদদাতারা বলছেন ঐ ঘটনার পর আইন অনেক শক্ত করা হলেও, দিল্লিতে ধর্ষণের ঘটনা কমার তেমন কোনো লক্ষণ এখনো নেই।

সুত্র- বিবিসি

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: