শুক্রবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

আটক হতে পারেন খালেদা



1420313839karjaloy-Mtnews24_নিউজ ডেস্ক :: সহিংসতা বন্ধ না করলে আগামী ২২ জানুয়ারির পর যে কোনো সময় আটক করা হতে পারে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে। চলমান রাজনৈতিক সংকট কাটাতে এবং সহিংস পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে সরকার হার্ডলাইনে থাকারই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। জিরো টলারেন্সে থেকেই পরিস্থিতি সামাল দিতে সরকার এইসব সিদ্ধান্ত নিয়েছে । তবে অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার করা হলে খালেদা জিয়াকে আটকের এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসবে সরকার।
এই কাজ বাস্তবায়ন করার জন্য আজ থেকে দেশব্যাপী যৌথবাহিনীর অভিযানে তালিকা অনুযায়ী আটক করা হবে মাঠে সক্রিয় বিএনপি-জামায়াত নেতাদের। পাশাপাশি ২০ দলীয় জোটের কেন্দ্রীয় নেতাদেরও পৃথক তালিকা করা হয়েছে। তালিকা ধরে ধরে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে সরকার।
সরকারের দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানায়, ঢাকা মহানগরকে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণে আনা হবে।
ঢাকায় বিএনপি সমর্থক বেশির ভাগ কাউন্সিলর আটক হতে পারেন। এ জন্য গুলশান, লালবাগ, তেজগাঁও, মোহাম্মদপুর ও মিরপুরের কয়েকজন কাউন্সিলরের অবস্থান নিশ্চিত করতে কাজ শুরু করেছেন দায়িত্বপ্রাপ্তরা। ঢাকায় যৌথ অভিযানের প্রথম পর্যায়েই তারা আটক হবেন। এদিকে, বিএনপি চেয়াপারসনের বিরুদ্ধে বর্তমানে চলতে থাকা জিয়া অরফানেজ ও জিয়া চেরিট্যাবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলাও দ্রুত শেষ করার কথা ভাবা হচ্ছে। ইতিমধ্যে এ মামলার সব আইনি দিক খতিয়ে দেখতে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
এ ক্ষেত্রে গ্রেফতার প্রক্রিয়ায় বিলম্ব হলেও এ মুহূর্তে সারা দেশ অচল, জ্বালাও-পোড়াও এবং পুড়িয়ে মানুষ মারার নির্দেশ দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার হতে পারেন বেগম খালেদা জিয়া। এ প্রসঙ্গে যোগাযোগ করা হলে গতকাল সন্ধ্যায় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল স্পষ্ট করে কিছু বলতে চাননি। তবে প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, ‘সাতদিনের মধ্যেই পরিস্থিতি পাল্টে যাবে। জনজীবন স্বাভাবিক ধারায় চলে আসবে।’
অন্যদিকে, বিএনপির নীতি-নির্ধারক সূত্রগুলো বলছে, যেকোনো পরিস্থিতিতে বেগম খালেদা জিয়ার গ্রেফতার হওয়ার আশঙ্কা বিএনপিতেও আছে। এ বিষয়টি মাথায় রেখেই আন্দোলন কর্মসূচিতে পরিবর্তন আনা হচ্ছে। কোনো কারণে খালেদা জিয়া গ্রেফতার হলে পরে কারা দলীয় কার্যক্রমের নির্দেশনার দায়িত্বে থাকবেন সংশ্লিষ্টদের এরই মধ্যে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।
প্রয়োজনীয় বার্তাও বেগম জিয়া পাঠিয়েছেন। দলের প্রবীণ একাধিক নেতার সঙ্গে এ নিয়ে তার কথাবার্তা হয়েছে। সর্বোচ্চ পর্যায়ের নেতারা গ্রেফতার হলে ‘চেইন অব কমান্ড’ ধরে রাখার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছেন বিএনপি প্রধান। সিনিয়র নেতারা গ্রেফতার হলে মধ্যম সারির নেতারা মূল নেতৃত্বে চলে আসবেন। আবার মধ্যম সারির নেতারা গ্রেফতার হলে জুনিয়র ও তৃণমূল নেতারাই দলের হাল ধরবেন। জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) গ্রেফতার হলেও দলের চেইন অব কমান্ড অনুযায়ী সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড চলবে। দলের গঠনতন্ত্র অনুসরণ করা হবে। তবে সরকার যদি মনে করে, বেগম জিয়াকে গ্রেফতার করলেই আন্দোলন ভেস্তে যাবে, এটা ভুল সিদ্ধান্ত। আন্দোলন পর্যায়ক্রমে আরও কঠোরতার দিকেই যাবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: