মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «  

আজ দিন রাত সমান, আকাশে থাকবে সুপারমুন



নিউজ ডেস্ক:: চাঁদ নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। চাঁদের মায়াবী আলোয় চমৎকার একটি রাত কাটানোর সুযোগ এলো। আকাশে আজ বৃহস্পতিবার দেখা যাবে বড় ও উজ্জ্বল চাঁদ। এমন চাঁদকে বলা হয় সুপারমুন। এছাড়া আজ বৃহস্পতিবার দিন রাত থাকবে সমান।

মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসার মতে, আজ পূর্ণিমা রাতে আকাশে যে চাঁদ উঠবে সেই সুপারমুনকে দেখাবে স্বাভাবিকের চেয়ে ১৪ শতাংশ বড়। চাঁদ কিছুটা উপবৃত্তাকার কক্ষপথে পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করে। তাই এটি কখনও পৃথিবীর কাছে আসে, কখনও বা দূরে সরে যায়। পূর্ণ চাঁদ যখন পৃথিবীর খুব কাছ ঘেঁষে যায়, তাকেই বলা হয় সুপারমুন। আজ রাতে চাঁদকে দেখা যাবে পূর্ণ আলোকিত, এর ঔজ্জ্বল্য থাকবে ৩০ শতাংশ বেশি। আকাশ মেঘাচ্ছন্ন না থাকলে পৃথিবীর যে কোনো প্রান্ত থেকেই সুপারমুনের সৌন্দর্য উপভোগ করা যাবে।

নাসার বিজ্ঞানীদের মতে, চলতি বছর এটাই সর্বশেষ সুপারমুন। স্বাভাবিক সময়ে আমরা যে চাঁদ দেখি, সুপারমুনের সময় তার চেয়ে এ চাঁদ দেখতে হবে প্রায় ১৪ ভাগ বড়। বিশ্ববাসী আবারো আরেকটি সুপারমুন দেখতে পাবেন ২০৩০ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি।

অন্যদিকে পৃথিবী সূর্যের চারদিকে পরিক্রমণকালে পৃথিবীর মেরু রেখা ধ্রুবতারামুখী হয়ে কক্ষপথের সঙ্গে সব সময় ৬৬.৫ ডিগ্রি কোণ করে হেলে থাকে। আবার নিরক্ষ রেখা বা বিষুব রেখার সমতল কক্ষপথের সঙ্গে ২৩.৫ ডিগ্রি কোণে হেলে থাকে। এ কারণে প্রতি বছর ২১ মার্চ ও ২৩ সেপ্টেম্বর সারা পৃথিবীতে দিন রাত সমান হয়ে থাকে। এ সময় পৃথিবীর দুই গোলার্ধেই দিনের বেলা ১২ ঘণ্টা করে আলো পায় এবং ১২ ঘণ্টা পায় না। অর্থাৎ দুই গোলার্ধেই দিন-রাত সমান হয়ে থাকে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: