শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক ইজিএনের নতুন সভাপতি, অনুরূপ সম্পাদক  » «   ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «  

অবরোধ তুলে না নিলে চুক্তি স্বাক্ষর করবে না ইরান



16. iran-presidintআন্তর্জাতিক ডেস্ক::
প্রেসিডেন্ট হাসান রোহানি বলেছেন, অর্থনৈতিক অবরোধ তুলে না নিলে তাঁর দেশ পরমাণু চুক্তিতে স্বাক্ষর করবে না। পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে ইরানের খসড়া চুক্তি স্বাক্ষরের এক সপ্তাহের মধ্যেই ইরানের প্রেসিডেন্ট এ কথা বললেন। বুধবার আণবিক প্রযুক্তি দিবস পালন করেছে ইরান। আণবিক গবেষণার ক্ষেত্রে দেশের সব অর্জন উদযাপনের দিনে প্রেসিডেন্ট রোহানি বলেন, ‘চুক্তি কার্যকর শুরুর প্রথম দিনেই সব অর্থনৈতিক অবরোধ তুলে না নিলে আমরা চুক্তিতে স্বাক্ষর করবো না।’

গত সপ্তাহে সুইজারল্যান্ডের লোসানে টানা আট দিনের আলোচনা শেষে ছয় বিশ্বশক্তি, অর্থাৎ যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, চীন, রাশিয়া ও জার্মানির সঙ্গে পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে খসড়া চুক্তি স্বাক্ষর করে ইরান। চুক্তি অনুযায়ী ইরান ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করা ধীরে ধীরে কমাবে। খসড়া চুক্তিতে বলা হয়, ইরান তার পারমাণবিক ক্ষমতা দুই তৃতীয়াংশ কমিয়ে আনবে। পরমাণু গবেষণাও ধীরে ধীরে বন্ধ করা হবে। চুক্তি অনুযায়ী কাজ হচ্ছে কিনা তা পর্যবেক্ষণ করবে আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা (আইএইএ)। চুক্তি অনুযায়ী কাজ হলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও যুক্তরাষ্ট্র পর্যায়ক্রমে ইরানের ওপর থেকে সব নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবে- এ কথাও বলা হয়েছে চুক্তিতে। ৩০ জুনের মধ্যে দু পক্ষের মূল চুক্তিতেও স্বাক্ষর করার কথা। কিন্তু এক সপ্তাহের মধ্যেই চুক্তির বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিয়েছে ইরান। রোহানি সরকারের ওপর দেশের জনগণের প্রত্যাশার চাপ এর একটা কারণ হতে পারে।

খসড়া চুক্তি স্বাক্ষরের পর উল্লাসে মেতে ওঠে ইরান। ইরানের সর্বস্তরের মানুষ মনে করছে, চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে এবং দেশের ওপর থেকে সব নিষেধাজ্ঞা সরে যাবে, যার অর্থ, আবার মুক্ত হবে ইরান৷ ইরানের মানুষ অনেক বছর ধরে এমন একটি দিনের অপেক্ষায়। শুক্রবার খসড়া চুক্তি স্বাক্ষরের আনন্দে উদ্বেল মিনা দেরাখশান্দে বলছিলেন, ‘অবশেষে সব শেষ হলো। (ইরানের) নির্বাসনপর্ব শেষ৷ অর্থনৈতিক দুরবস্থা এখন কেটে যাবে। রোহানি কথা রেখেছেন৷।’ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী মিনা সঙ্গে এ-ও বলেছেন, ‘(চুক্তি নিয়ে) আলোচনাটা ব্যর্থ হলে আমাদের, অর্থাৎ ইরানের মানুষদের সর্বনাশ হয়ে যাবে। এমন কথা আমি ভাবতেই পারিনা।’

ইরানের অধিকাংশ মানুষের মনের কথাই বলেছেন মিনা। আণবিক চুক্তি স্বাক্ষর করে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করার আশ্বাস দিয়েই ক্ষমতায় এসেছেন হাসান রোহানি। বিশ্লেষকরা মনে করছেন, চুক্তি না হলে এবং সে কারণে অর্থনৈতিক অবরোধ প্রত্যাহার না হলে ইরানের অভ্যন্তরীণ সংকট ব্যাপক রূপ নেবে। কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইরান বিষয়ক বিশেষজ্ঞ করিম সাদজাদপুর মনে করেন, ‘চুক্তি ফলপ্রসূ না হলে বেশিরভাগ অ্যামেরিকান এ নিয়ে হয়তো মাথাই ঘামাবেনা, কিন্তু ইরানিদের খুব খারাপ অবস্থা হবে।’ জনগণের প্রত্যাশার এমন চাপের কারণেই হয়তো চুক্তি চুক্তি কার্যকর শুরুর দিনেই অর্থনৈতিক অবরোধ তুলে না নিলে চুক্তিতে স্বাক্ষর না করার হুমকি দিয়েছেন হাসান রোহানি।

সূত্র : ডয়েচবেল

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: