সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক ইজিএনের নতুন সভাপতি, অনুরূপ সম্পাদক  » «   ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «  

অনুসন্ধান ও উদ্ধারে রোবট সাপ



Snakeতথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক: ইসরায়েলের একদল প্রকৌশলী এবার তৈরি করেছেন সাপ-আকৃতির একটি রোবট। এটি অনুসন্ধান ও উদ্ধার অভিযানে অংশ নিতে পারে। বিয়ারশেবা শহরের বেন-গুরিয়ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশলী আমির শাপিরোর গবেষণাগারে তৈরি রোবটটির নমনীয়তার মাত্রা এমন যে এটি ধসে পড়া কোনো ভবনে অনুসন্ধান চালিয়ে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণে সক্ষম।
মরুভূমির সাইডওয়াইন্ডার সাপের চলন অনুসরণ করে বিজ্ঞানীরা বানালেন রোবট সাপ। এই রোবট সাপও হুবহু সাইডওয়াইন্ডার সাপের মতো আড়াআড়ি বালিয়ারি বেয়ে অনায়াসে ধেয়ে যেতে পারে।
গবেষণাগারের মেঝেতে রোবটটি দিব্যি সাপের মতো হামাগুড়ি দিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তবে এতে বাস্তব সাপের অবয়ব এখনো দেওয়া হয়নি। শাপিরো আগেও বেশ কয়েকটি রোবট তৈরি করেছেন। এগুলোর অধিকাংশই ইসরায়েলি সেনাবাহিনীতে ব্যবহৃত হচ্ছে। এসবের মধ্যে রয়েছে সিঁড়ি বেয়ে ভারী বোঝা বহনকারী রোবট। আবার কিছু রোবট জাহাজে লুকিয়ে রাখা বোমাও শনাক্ত করতে পারে। প্রায় সাত ফিট লম্বা ও সর্বোচ্চ ১৩ পাউন্ড পর্যন্ত ওজন বহনে সক্ষম দেখতে হুবহু সাপটি গবেষণা কর্ম পরিচালনার জন্য মূলত তৈরি করা হয়েছে।
এটি ২২৫ ডিগ্রি পর্যন্ত বাক নিতে পারে। তৈরির শৈলীতে এর আকৃতির গঠন প্রণালী এমন যে এটি যেকোনো সংকীর্ণ স্থানে যেতে পারে। অনেক স্পর্শ কাতর স্থান আছে ‘যেমন-কোন সুরুঙ্গ বা টানেল, প্রাকৃতিক খনি’ যেখানে মানুষের পক্ষে সশরীরে প্রবেশ করা কঠিন। সাপটির মুখে একটি ক্যামেরা যুক্ত করে এতে ফ্লাস লাইট লাগানো রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: