মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

হংকংয়ে নির্বাচন: গণতন্ত্রপন্থীদের অভূতপূর্ব সাফল্য



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: চীনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল হংকংয়ের স্থানীয় পরিষদ নির্বাচনে গণতন্ত্রপন্থী হিসেবে পরিচিত সরকারবিরোধী আন্দোলন সমর্থিত প্রার্থীরা অভূতপূর্ব সাফল্য পেয়েছে। আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণা করা না হলেও প্রাথমিক ফলাফলে ১৮টি পৌরসভার ১৭টিতেই গণতন্ত্রপন্থীদের সাফল্যের খবর পাওয়া গেছে। খবর বিবিসির।

এবারের স্থানীয় পরিষদ নির্বাচনে ৪৫২ আসনের বিপরীতে লড়ছেন এক হাজার ১০৪ জন। এ ছাড়া আরও ২৭টি আসন গ্রামীণ এলাকার প্রতিনিধিদের জন্য বরাদ্দ রয়েছে। এখন পর্যন্ত ২৭৮ আসনে গণতন্ত্রপন্থী প্রার্থীরা জয়লাভ করেছে বলে জানা গেছে। অন্যদিকে চীনপন্থী প্রার্থীরা জয় পেয়েছে ৪২ আসনে।

হংকংয়ে চলমান গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভের নেতিবাচক প্রভাব নির্বাচনে পড়ার আশঙ্কা করা হলেও বাস্তবে শান্তিপূর্ণভাবেই ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়। একটি বিতর্কিত প্রত্যর্পণ বিলকে কেন্দ্র করে বৃহত্তর স্বাধীনতার দাবিতে কয়েক মাস ধরেই হংকংয়ে চলছে সরকারবিরোধী রক্তক্ষয়ী বিক্ষোভ।

হংকংয়ে কয়েক মাস ধরে চলমান অস্থিতিশীল পরিস্থিতি, বিক্ষোভ ও সংঘর্ষের মুখে এই নির্বাচনকে সরকারের প্রতি জনগণের সমর্থন যাচাইয়ের পরীক্ষা হিসেবে দেখা হচ্ছিল। হংকং সরকার ও বেইজিং প্রত্যাশা করেছিল, নির্বাচনে সরকার সমর্থিত প্রার্থীদের বিজয়ী করার মধ্য দিয়ে তথাকথিত ‘নীরব সংখ্যাগরিষ্ঠ’ জনগণ সরকারের প্রতি সমর্থন জানাবে।

কিন্তু বাস্তবে দেখা গেল উল্টো ঘটনা। নির্বাচনে গণতন্ত্রপন্থী প্রার্থীদের কাছে আসন খুইয়েছেন বেশ কয়েকজন ডাকসাইটে বেইজিংপন্থী নেতা। নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর এমনই এক বিতর্কিত বেইজিংপন্থী আইনপ্রণেতা বলেন, যা ধারণা করা হয়েছিল, তার সঙ্গে বাস্তবতার ‘আসমান-জমিন ফারাক’।

এমনিতে জেলা কাউন্সিলরদের তেমন রাজনৈতিক ক্ষমতা নেই। বাস রুট বা বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি স্থানীয় বিষয় দেখভাল করাই কাউন্সিলরদের মূল কাজ। তাই সাধারণত এই নির্বাচন নিয়ে আগে কখনোই এতটা মাতামাতি ছিল না। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতি একেবারেই ভিন্ন। হংকংয়ের গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভ ও সংকট মোকাবিলায় হংকংয়ের প্রশাসক ক্যারি ল্যামের পদক্ষেপের বিষয়ে প্রথমবারের মতো ব্যালট বাক্সের মাধ্যমে নিজেদের মতামত জানানোর সুযোগটা লুফে নিয়েছেন হংকংবাসী।

এবারের নির্বাচনে ভোট দেয়ার জন্য নাম তালিকাভুক্ত করেছিলেন রেকর্ডসংখ্যক হংকংবাসী। ভোট দেয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেন ৪১ লাখ মানুষ, যা হংকংয়ের মোট জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি। শেষ পর্যন্ত ৪৫২ আসনে ভোট দিয়েছেন প্রায় ৩০ লাখ মানুষ। গত কাউন্সিল নির্বাচনে ভোট দিয়েছিলেন ৪৭ শতাংশ ভোটার, আর এবার ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন ৭১ শতাংশ ভোটার।

নির্বাচনকে ঘিরে চলতি সপ্তাহে প্রথমবারের মতো গত কয়েক মাসের মধ্যে বিক্ষোভকারী ও পুলিশের মধ্যে কোনো ধরনের সংঘর্ষ বা সংঘাত হয়নি। এদিকে ভোটদানের পর হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি ল্যাম বলেন, ‘চরম চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতির মুখে আমি সন্তুষ্টচিত্তে বলছি, নির্বাচনের দিন পরিস্থিতি তুলনামূলকভাবে শান্ত ও শান্তিপূর্ণ ছিল।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: