শনিবার, ৩০ মে ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

সড়কে নামাজ ঠেকাতে রাস্তায় বসে বিজেপির মন্ত্র পাঠ



নিউজ ডেস্ক:: শুক্রবার নামাজ পড়ার জন্য মুসলিমদের রাস্তা আটকানোর প্রতিবাদে এবার রাস্তা আটকিয়ে হনুমান চালিশা (মন্ত্র) পাঠ করেছেন ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির নেতাকর্মীরা। মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে পশ্চিমবঙ্গের হাওড়ার রাস্তায় মন্ত্র পাঠ করে সড়কে মুসলিমদের জুমার নামাজ আদায়ের প্রতিবাদ জানিয়েছে তারা। জুমার সময় রাস্তায় নামাজ দাড়াঁনো বন্ধ না হলে এখন থেকে প্রতি মঙ্গলবার হনুমান মন্দিরগুলোর কাছে অবস্থিত সব প্রধান সড়ক বন্ধ করে দেয়ার হুমকিও দেয়া হয়েছে।

বিজেপি যুব মোর্চার স্থানীয় মুখ্য নেতা ওপি সিংহ জানিয়েছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজত্বে আমরা দেখেছি গ্র্যান্ড ট্রাঙ্ক রোডসহ অন্যান্য প্রধান রাস্তা শুক্রবার নামাজ পড়ার জন্য বন্ধ করে দেয়া হয়। এর ফলে অ্যাম্বুল্যান্সে শুয়ে থাকা রোগী মরে যায়, বাচ্চারা স্কুলে পৌঁছতে পারে না এবং অফিসযাত্রীরা সময়মতো অফিস যেতে পারেন না। এটা যতদিন চলবে, আমরা প্রতি মঙ্গলবার হনুমান মন্দিরগুলোর কাছে অবস্থিত সব প্রধান রাস্তা বন্ধ করে হনুমান চালিশা পড়ব।

জেলা বিজেপির সভাপতি আরও বলেন, ধর্মীয় আচার-আচরণ পালনের প্রকৃত স্থান হলো মন্দির, মসজিদ, গুরুদুয়ারা কিংবা চার্চ। মানুষের চলাচলের জন্য বানানো সড়ক আটকে তাদের দুর্ভোগে ফেলার অধিকার কারো নেই। সেটি যেই ধর্মেরই হোক না কেন। ধর্মীয় রীতি পালনের থাকলে তা বাড়িতে করাই ভালো। সড়ক আটকে মানুষকে বিপদে ফেলা উচিত নয়।

লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপির অভাবনীয় উত্থানের পর থেকে তৃণমূল ও গেরুয়া শিবিরের মধ্যে উত্তেজনা ক্রমশ বাড়ছে। ২০১৪ সালের লোকসভায় তৃণমূল ৩৪টা আসন পেয়েছিল। এবারের নির্বাচনে তারা পেয়েছে ২২টি আসন। অন্য দিকে বিজেপি গতবারের ২টি আসন পেলেও এবার পেয়েছে ১৮টি আসন।

নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পর থেকে রাজ্যে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বেশ কিছু ঘটনা ঘটেছে। বিজেপি নেতাদের অভিযোগ, যে দিন থেকে বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন, সে দিন থেকে আমাদের সংস্কৃতি পুরোপুরি নষ্ট হতে বসেছে। দিদি আসার পর থেকেই প্রতি শুক্রবার একটি সম্প্রদায়ের মানুষ রাস্তা বন্ধ করে নামাজ আদায় করছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: