সোমবার, ১৩ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

সুনামগঞ্জে সন্তানদের স্কুল থেকে বাড়ি নেয়ার পথে বজ্রপাতে পিতা-পুত্র নিহত



নিউজ ডেস্ক:: সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জে বজ্রপাতে শিশুপুত্রসহ এক বাবা নিহত হয়েছেন। বুধবার দুপুরে উপজেলায় ছেলে-মেয়েকে নিয়ে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন জামালগঞ্জ সদর ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের ছাবিদুর চৌধুরী ও তার ছেলে অন্তর চৌধুরী (৬)। বজ্রপাতে ছাবিদুরের শিশুকন্য নৈশী চৌধুরী (৯) গুরুতর আহত হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, দুপুরে ছেলে অন্তর ও মেয়ে নৈশীকে স্থানীয় উপজেলা সদরের চাইল্ড কেয়ার স্কুল থেকে বাড়িতে নিয়ে ফিরছিলেন তাদের বাবা ছাবিদুর। এ সময় মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছিল। বাড়ির কাছাকাছি হেলিপ্যাড মাঠে আসলে হঠাৎ বজ্রপাত তাদের ওপর পড়ে। এতে তিনজনই মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। স্থানীয় একজন ব্যক্তি তাদেরকে মাঠে পড়ে থাকতে দেখে অন্যদের সহযোগিতায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে অন্তরকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

বাবা ছাবিদুর রহমানের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে সিলেটে রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারও মৃত্যু হয়। আহত শিশুকন্যা নৈশী চৌধুরী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

জামালগঞ্জ থানার ওসি মো. সাইফুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বজ্রপাতে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। জামালগঞ্জ থানা পুলিশ নিহতদের পরিবারের খোঁজখবর নিয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: