মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

সিলেটে গাড়ি চুরি মামলায় চিটিং মণি গ্রেফতার



নিউজ ডেস্ক:: সিলেটে গাড়ি চুরি মামলায় এক লন্ডন প্রবাসীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার নাম মুহিত সুলায়মান খান তানিম ওরফে মণি। মঙ্গলবার সকালে মণিকে আদালতে পাঠিয়েছে সিলেট বিমানবন্দর থানা পুলিশ।এর আগে সোমবার রাতে গাড়ি চুরি মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। বিমানবন্দর থানার ওসি সাহাদাত হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্ত্রীর বদৌলতে লন্ডনে গেলেও মাদকাসক্তি, প্রতারণা, জালিয়াতি থেকে দূরে সরতে পারেননি মণি। তাই সিলেটে পরিচিতি পেয়েছেন চিটিং মণি হিসেবে। মুহিত সুলায়মান খান তানিম ওরফে মণি নগরীর ফাজিলচিস্ত এলাকার ৯ নম্বর বাসার বাসিন্দা আবদুল মালেক খানের ছেলে।

পুলিশ জানায়, শহরতলির বাদাঘাট এলাকার ব্যবসায়ী ফরিদ আহমদের ছোটভাই লিমন আহমদের সঙ্গে পরিচয় ছিল মণির। এর সূত্র ধরে গত ৪ সেপ্টেম্বর লিমনের কাছ থেকে তার বড় ভাই ফরিদ আহমদের ‘নোহা’ গাড়িটি কয়েক ঘণ্টার জন্য চেয়ে নেন প্রতারক মণি।

ওই দিনই গাড়িটি নগরীর গোয়াইপাড়ার বাসিন্দা আবদুল্লাহর কাছে মাত্র এক লাখ ২০ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেন। লিমন আহমদ গাড়িটি ফেরত চাইলে টালবাহানা শুরু করেন মণি।পরে লিমন জানতে পারেন তার ভাইয়ের গাড়িটি মণি বিক্রি করে দিয়েছে।

এ ব্যাপারে গত সোমবার সকালে ফরিদ আহমদ বাদী হয়ে মণির বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার পরিপ্রেক্ষিতে নগরীর মজুমদারি এলাকার বিএম টাওয়ার মণিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এর মাত্র দুই মাস আগে মণির পরিচয় হয় নগরীর এক রাইড শেয়ারিং চালকের। সেই সুবাদে মোটরসাইকেলটি মাসিক ভাড়া চুক্তিতে নিজে চালাবেন বলে নিয়ে আসেন মণি। এর পর মোটরসাইকেলটি অন্যত্র বিক্রি করে দেন।এরও আগে ২০০৩ সালে হেরোইনসহ পুলিশের হাতে ধরা পড়েছিলেন মণি। এর পর মাস তিনেক জেলও খাটেন তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: