মঙ্গলবার, ৪ অগাস্ট ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২০ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «  

সংসদীয় গণতন্ত্রের চর্চায় গণমাধ্যমের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ: স্পিকার



নিউজ ডেস্ক:: বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন বলেছেন, ‘সংসদীয় গণতন্ত্রের চর্চায় গণমাধ্যমের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। জন্মলগ্ন থেকেই একুশে টিভি জাতীয় সংসদের বিভিন্ন কার্যক্রম গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরছে। ভবিষ্যতেও একুশে টেলিভিশন এই ধারাবহিকতা ধরে রাখবে বলে আমি প্রত্যাশা করি।’ একুশে টেলিভিশনের বিশতম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে দেয়া এক শুভেচ্ছা বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্পিকার বলেন, ‘তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে টেলিভিশন শুধু বিনোদনের মাধ্যমই নয় বরং বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ অনুষ্ঠান পরিবেশনের মাধ্যমে দেশের মানুষের উন্নত মনন গঠনে অবদান রাখতে পারে। এছাড়াও সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ দমনে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে বলে আমি মনে করি।’

একুশে টিভিতে কর্মরত সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি বলেন, একুশে টেলিভিশনের ২০তম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আমি প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদ, সাংবাদিক, কলাকুশলী ও কর্মকর্তা-কর্মচারিসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাই।

তিনি বলেন, ‘শিক্ষা, ক্রীড়া, সাহিত্য-সংস্কৃতি ও বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানাদি প্রচারের পাশাপাশি বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ইস্যুতে জনমত গঠনে টেলিভিশনের রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। তবে জনগনের মাঝে গ্রহনযোগ্যতা সৃষ্টিতে গণমাধ্যমগুলোকে বস্তুনিষ্ঠতা ও দায়িত্বশীলতার সঙ্গে খবরের পিছনের প্রকৃত সত্যকে জনসম্মুখে তুলে ধরতে হবে।’

ড. শিরীন শারমিন আশা প্রকাশ করে বলেন, ‘একুশে টেলিভিশন বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রচারের মাধ্যমে বাঙালির সমৃদ্ধ সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্য ও মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সমৃদ্ধ রেখে সুখী সমৃদ্ধ উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণে আরো কার্যকর ভূমিকা রাখবে। আমি একুশে টেলিভিশনের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করি।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: