মঙ্গলবার, ৭ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

রাত ১০ টার পর যে কোন সময়ে ফাঁসি কার্যকর



2. jailনিউজ ডেস্ক::
মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসির সাজা প্রাপ্ত জামায়াত ইসলামের সহকারি সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার পুরোই প্রস্তুত। একটু আগেই কারাগারে প্রবেশ করেছেন আইজি প্রিজন ইফতেখার উদ্দিন, এডিশনাল আইজি প্রিজন কবির হোসেন ও ডিআইজি প্রিজন গোলাম হায়দার। ধারণা করা হচ্ছে রাত ১০টার পরে যে কোনও সময়ে কার্যকর করা হবে কামারুজ্জামানের ফাঁসি।
একাধিক সূত্র জানায়, ফাঁসির পর কামারুজ্জামানের মরদেহ শেরপুর পাঠানো হবে। একটি দীর্ঘ পথ পারি দিয়ে মরদেহ নিয়ে যাওয়া আর রাতের আঁধার থাকতেই কবর দেওয়ার কাজ সম্পন্ন করতে হবে বলেই মধ্যরাতের আগেই ফাঁসি কার্যকর করা হবে।

শনিবার বিকেলে কামারুজ্জামানের পরিবারের সদস্যরা তার সঙ্গে শেষ দেখা করে গেছেন। এর আগেই কারাগারে পৌঁছায় কামারুজ্জামানের ফাঁসি কার্যকর করার নির্বাহী আদেশ। সে আদেশও তাকে পড়ে শোনানো হয়।

কামারুজ্জামানের ফাঁসির আদেশের বিরুদ্ধে রিভিউ আপিল করা হলে তাও খারিজ হয়ে যায়। গত ৬ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ওই রায় দেওয়ার পর থেকেই কামারুজ্জামানের কাছে জানতে চাওয়া হয় তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না। তখন থেকে সিদ্ধান্ত নিতে যৌক্তিক সময় চেয়ে চার দিন কাটিয়ে দেন এই জামায়াত নেতা। পরে শুক্রবার তার কাছে আবারও শেষ সিদ্ধান্ত জানতে চাওয়া হয়। এ সময়ই সিদ্ধান্ত জানতে যাওয়া দু’জন ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে কারা কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত হয়, কামারুজ্জামান ক্ষমা চাইছেন না।

তারই ভিত্তিতে এগিয়ে চলে ফাঁসি কার্যকরের প্রক্রিয়া। শনিবার সকালেই উদ্যোগ নেওয়া হয় নির্বাহী আদেশ তৈরির। নির্বাহী আদেশের ফাইল প্রস্তুত করে তা পাঠানো হয় রাজধানী মনিপুরীপাড়ায় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাড়িতে। সেখানে তিনি আদেশের ফাইলে স্বাক্ষর করলে দুপুরে তা চলে যায় কেন্দ্রীয় কারাগারে।
সূত্রগুলো জানিয়েছে, এ আদেশের ভিত্তিতে চলছে ফাঁসি কার্যকরের চূড়ান্ত প্রক্রিয়া।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: