শুক্রবার, ২৪ জুন ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «  

মৌলভীবাজারে মায়ের ‘পরকীয়া’ দেখে ফেলায় মেয়ে খুন



নিউজ ডেস্ক:: মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলায় পরকীয়া দেখে ফেলায় মেয়েকে খুন করার অভিযোগ উঠেছে মায়ের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত মায়ের নাম জেলি বেগম। তিনি উপজেলার বড়ধামাই গ্রামের বাসিন্দা কাতার প্রবাসী কাজল মিয়ার স্ত্রী। দুইমাস আগের এই ঘটনায় নিহত স্কুলছাত্রী শাহিনা জান্নাত অপির (১২) চাচী সুকেদা বেগম আদালতে পিটিশন মামলা দায়ের করেছেন। আদালত মামলার প্রতিবেদন দাখিল করতে থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ১৮ জুন রাতে অপি আত্মহত্যা করেছে বলে স্বজনদের মধ্যে প্রচার করেন মা জেলি বেগম। জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বরাবরে জেলি বেগমের আবেদনের প্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরদিন ১৯ জুন স্কুলছাত্রী অপির মরদেহ দাফন করা হয়। জেলি ‘আত্মহত্যায়’ মেয়ে মারা গেছে দাবি করে থানায় ইউডি মামলা করলেও প্রতিবেশীরা দাবি করেন ঘটনাটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড।

জানা গেছে, ঘটনার রাতে পরকীয়ার বিষয়টি প্রবাসে থাকা বাবাকে বলে দেয়ার হুমকি দিলে মা জেলি বেগম ক্ষিপ্ত হয়ে অপিকে লোহার রড দিয়ে বেধড়ক পেটাতে থাকেন। এক পর্যায়ে সে মারা যায়। পরে মা জেলি বেগম গলায় ওড়না পেছিয়ে বাথরুমের বর্গায় মেয়ের মরদেহ ঝুলিয়ে সে আত্মহত্যা করেছে বলে এলাকায় প্রচার করেন। অপির শরীরে মারপিটের অসংখ্য দাগ থাকা স্বত্ত্বেও স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের সঙ্গে জেলি বেগমের গভীর সখ্যতা থাকায় তাদের মাধ্যমে থানা পুলিশকে অন্ধকারে রেখে তিনি ময়নাতদন্ত ছাড়াই মেয়ের মরদেহ দাফন করেন।

জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার জানান, বিজ্ঞ আদালত স্কুলছাত্রী অপির মৃত্যু সংক্রান্ত ইউডি মামলার প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। ইতোমধ্যে তা আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: