রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «  

মিলানে লাশ আর লাশ, মর্গে জায়গা নেই



বর্তমানে করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি ভুগছে ইউরোপের দেশ ইতালি। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে প্রাণ হারিয়েছেন ৩৪৫ জন, নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি মানুষ। সেখানে এ পর্যন্ত মারা গেছেন মোট ২ হাজার ৫০৩ জন, আক্রান্ত হয়েছেন ৩১ হাজার ৫০৬ জন।

হৃদয়বিদারক ঘটনা দেখা যাচ্ছে ইতালির উত্তরাঞ্চল মিলানের লম্বারদিয়ায়। সেখানে লাশ আর লাশ। হাসপাতালের মর্গেও জায়গা নেই। হাসপাতাল এবং বিশ্রামাগারে চলছে দিনরাত হাহাকার। কফিনগুলো কয়েক ঘণ্টার মধ্যে সরিয়ে নিতে হচ্ছে।

আত্মীয়স্বজনরা শেষবারের মতো বিদায়ের জন্যও তাদের প্রিয়জনের কাছে যেতে পারছেন না। অনেকে আফসোসের সঙ্গে বলছেন, এমন এক দুর্দশা, যা আগে কখনোই দেখিনি।

তবে লম্বারদিয়ায় শ্রমিকরা নিহতদের শেষ শ্রদ্ধা জানাতে শেষ ফুলটি কবরস্থানে নিয়ে যাচ্ছেন।

ম্যাসিমো সেরাতো মিলানের অন্যতম বৃহত্তম ফুনেরাল সংস্থার নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি মনে করেন, সাম্প্রতিক দিনগুলোতে বিশ্বের পরিবর্তন হয়েছে।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষদিন চীনের উহানে শনাক্ত হয়েছিল প্রাণঘাতী ভাইরাস এনসিওভি-১৯, বিশ্বজুড়ে যা পরিচিতি পেয়েছে নভেল করোনাভাইরাস নামে। প্রায় তিন মাস চীনে তাণ্ডব চালিয়েছে, এখন গোটা বিশ্বেই আতঙ্ক ছড়াচ্ছে এই মহামারি।

ইতোমধ্যেই বিশ্বের অন্তত ১৬৫টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। এখন পর্যন্ত এতে মারা গেছেন ৭ হাজার ৯৬৫ জন, আক্রান্ত হয়েছেন অন্তত ১ লাখ ৯৮ হাজার ১২৯ জন।

চীনে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৩ হাজার ২২৬ জন। আর আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৮০ হাজার ৮৮১ জন। গত কয়েক সপ্তাহে করোনা সংক্রমণ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে নিযে এসেছে তারা। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে কেউ মারা যাননি, আক্রান্তের সংখ্যাও খুবই সামান্য।সূত্র : জাগো নিউজ

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: