রবিবার, ৩১ মে ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

‘মানবিক বিবেচনায়’ দেরিতে আসা পরীক্ষার্থীকে কেন্দ্রে ঢুকতে দিলো কুবি প্রশাসন



নিউজ ডেস্ক:: প্রথমদিনের মতো দ্বিতীয় দিনেও দেরিতে আসা ভর্তিচ্ছুকে পরীক্ষা কেন্দ্রে ঢুকতে দিয়েছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। দুই দিনই ‘মানবিক বিবেচনা’র কারণ দেখিয়ে তাদের ঢুকতে দেয়া হয়। শনিবার কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির প্রথম বর্ষ ‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। সকাল ১০টা থেকে মোট ৯টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

পরীক্ষা চলাকালীন ১০টা ৩২ মিনিটে এক শিক্ষার্থী কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে আসে। ওই পরীক্ষার্থীর নাম তানজিলা তাসনিম রিফা। তার ভর্তি রোল ৩০১৮৯০। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের, প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন ঐ ভর্তিচ্ছুকে ‘মানবিক বিবেচনায়’ কেন্দ্রে প্রবেশের অনুমতি দেন।

এ বিষয়ে প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্রের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ‘মানবিক বিবেচনায়’ তাকে পরীক্ষার অনুমতি দেয়া হয়।

এ প্রসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের জানান, সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা নেয়ার স্বার্থে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ওই শিক্ষার্থীর খাতা আলাদা পর্যবেক্ষণের জন্য কেন্দ্র পরিদর্শকদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ৮ নভেম্বর ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় দেরিতে এসে পৌঁছায় কয়েকজন পরীক্ষার্থী। ওই সময় একজন পরীক্ষার্থী আহাজারি শুরু করলে তাকে ‘মানবিক বিবেচনায়’ পরীক্ষা দেয়ার অনুমতি দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী। এ সময় অন্য আরেক পরীক্ষার্থীও কেন্দ্রে প্রবেশ করে পরীক্ষা দেন।

এছাড়াও বিকেলের শিফটে ‘বি’ ইউনিটের পরীক্ষায় গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুলে দেরিতে আসে আরেক ভর্তিচ্ছুকে ‘মানবিক বিবেচনায়’ পরীক্ষার হলে বসার অনুমতি দেন উপাচার্য।

এ বিষয়ে উপাচার্য বলেন, ‘ভর্তি পরীক্ষা বিশাল কর্মযজ্ঞ। এই ভর্তি পরীক্ষাকে ঘিরে কোনো ধরণের পাবলিক সিন তৈরি হোক তা আমরা চাই না। তাই মানবিক বিবেচনায় তাদের সুযোগ দিয়েছি। তাদের খাতাগুলোকে চিহ্নিত করে রাখার নির্দেশনা দিয়েছি।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: