বুধবার, ১ ডিসেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

মক্কা-মদিনায় ইফতারে লাখো মুসল্লির ঢল



নিউজ ডেস্ক:: রমজান মাসে বিশ্বের অধিকাংশ মুসলিম রাষ্ট্রে মসজিদে মসজিদে ইফতারের বিশেষ আয়োজন থাকে। পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনার মসজিদে হারামাইনের চত্বরের ইফতারের আয়োজনই বিশ্বে সবচেয়ে বড়। কঠোর নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলার মাধ্যমে সেখানে লাখো মুসল্লি এক সঙ্গে ইফতারে অংশগ্রহণ করে।

ইফতারের আগে মুসল্লিরা মসজিদুল হারামাইন মক্কা ও মদিনায় আছর নামাজ পড়তে আসে।ইফতারের আগ মুহূর্ত পর্যন্ত এ ধারা অব্যাহত থাকে। মসজিদুল হারামাইন কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন আইটেমের ইফতারের ব্যবস্থা করে থাকে।

মসজিদুল হারামাইন চত্বরে রোজাদারদের মসলাদার খাবার, শরবত, কাবাব, রুটি, লাবাং, দই, খেজুর ও জমজমের পানি দিয়ে ইফতার করানো হয়।

মসজিদুল হারামাইন ছাড়াও মক্কা-মদিনার অন্যান্য সব মসজিদেও থাকে ইফতারের বিশেষ ব্যবস্থা। রোজাদারের জন্য অনেক স্থানে তাবু তৈরি করেও ইফতারের ব্যবস্থা করা হয়।সারা বিশ্ব থেকে ওমরা ও জিয়ারতে আসা হাজারো মানুষ ইফতারের সামগ্রী নিয়ে মসজিদুল হারামাইনের চত্বরে এক সঙ্গে ইফতারে অংশগ্রহণ করেন।

আছরের নামাজের সময় থেকেই পবিত্র কাবা শরিফ ও মসজিদে নববির গেট দিয়ে মুসল্লিরা ধীরস্থিরভাবে প্রবেশ করতে থাকে। ইফতার সামনে নিয়ে সব ভেদাভেদ ভুলে মুসলিম উম্মাহ এককাতারে বসে পড়েন।

মসজিদে হারাম ও মসজিদে নববির ইফতারের দৃশ্য এক অপূর্ব আধ্যাত্মিক আবহ তৈরি করে। যা সব মুসলমানের হৃদয় আলোকিত করে তুলে। যেন সেখানে বিরাজ করে জান্নাতি পরিবেশ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: