মঙ্গলবার, ২ জুন ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো ইন্দোনেশিয়ায়-জাপান-অস্ট্রেলিয়া



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: একই দিনে ইন্দোনেশিয়া, জাপান ও অস্ট্রেলিয়ায় বড় ধরনের ভূমিকম্প আঘাত হানার খবর পাওয়া গেছে। তবে এসব ভূমিকম্পে কোথাও কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। জারি করা হয়নি কোনো সুনামি সঙ্কেতও। ফের বড় ধরনের ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো ইন্দোনেশিয়া। মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ জানিয়েছে, শক্তিশালী ওই ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৭ দশমিক ৫।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পূর্ব তিমুরের রাজধানী দিলিতে প্রবল কম্পন অনুভূত হয়েছে। আতঙ্কিত লোকজন নিজেদের বাড়ি-ঘর ছেড়ে রাস্তায় বেরিয়ে এসেছে। ইন্দোনেশিয়ার অন্যতম পর্যটন দ্বীপ বালিতেও তীব্র কম্পন অনুভূত হয়েছে। অনেকেই সামাজিক মাধ্যমে জানিয়েছেন যে, তারা বালিতেও প্রচণ্ড কম্পন অনুভব করেছেন।

এদিকে সোমবার ইন্দোনেশিয়ার পাপুয়াতে কম্পনের পরই জাপানে আঘাত হানে আরেকটি ভূমিকম্প। ইন্দোনেশিয়ায় পাপুয়ার আবেপুরাতে একটি কম্পন হয় এবং অপর একটি কম্পন অনুভূত হয় জনপ্রিয় ট্যুরিস্ট স্পট সুলাওয়েলসিতে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ভূ তাত্ত্বিক জরিপ জানাচ্ছে, সোমবার ভোরে জাপানে ৫.৫ তীব্রতায় ভূমিকম্প আঘাত হানে। তবে তবে এতে কোনো সুনামি সতর্কবার্তা জারি করা হয়নি।

অস্ট্রেলিয়ার ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন জানিয়েছে, উত্তরাঞ্চলীয় ডারউইন শহরেও কম্পন অনুভূত হয়েছে। ভূমিকম্পের উপকেন্দ্র থেকে ওই শহরটি ৭শ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। তবে কোন ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

প্রাথমিকভাবে ভূমিকম্পের মাত্রা ৭ দশমিক ২ বলে জানানো হয়েছে। এটি সমুদ্রের ২২০ কিলোমিটার গভীরে আঘাত হেনেছে। এর মাত্র দু দিন আগে শনিবার চীনেও আঘাত হেনেছিল। ভূমিকম্পের আঘাতে চীনের সিচুয়ান প্রদেশের গঙজিয়ান এলাকা কেঁপে ওঠেছিলো। ৩১ জনের আহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছিলো। রিখটার স্কেলে এই ভূকম্পনের মাত্রা ছিল ৫.৪। আহতদের দ্রুত হাসপাতালে ভরতির ব্যবস্থা করা হয়। তবে করো আঘাতই তেমন গুরুতর নয় বলে জানা গেছে।

চীনের সরকারি সংবাদ সংস্থা সিনহুয়া জানায়, শনিবার রাত ১০.২৯ মিনিটে ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। মাটি থেকে মাত্র ১০ কিলোমিটার ভিতরে ছিল কম্পনের উৎসস্থল। ফলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বেড়েছে। চীনের ভূমিকম্প নেটওয়ার্ক সেন্টারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত সোমবারের ভূকম্পের মতোই তীব্র ছিল এটি। চীনে গত ৭ দিন আগের ওই ভূমিকম্পে ১১ জন নিহত হয়েছিলো। একই সঙ্গে আহত হয়েছিলো ১২২ জন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: