শুক্রবার, ১৪ অগাস্ট ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «  

ভাবিকে ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে দেবরের মৃত্যুদণ্ড



9. fasiনিউজ ডেস্ক::
বাংলাদেশে ভাবিকে অপহরণ করে ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে ঢাকার একটি আদালত দেবরকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক প্রায় নয় বছর আগের এ মামলার ঘোষণা করেন।

দেবর মো. আলমগীরকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার পাশাপাশি অপহরণ ও ধর্ষণের ঘটনায় ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। মামলার অপর দুই আসামি দেবর আলমগীরের দু’জন বন্ধুকেও ১৪ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। দেবর আলমগীর ও তার বন্ধু রিপনকে রায়ের পর কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। আরেক বন্ধু মিলন পলাতক রয়েছেন।

মামলার বিবরণে বলা হয়েছে, সৌদি আরব প্রবাসী শাহ আলমের স্ত্রী মুন্নী আক্তারকে বিভিন্ন সময়ে ‘অশালীন প্রস্তাব’ দিয়ে আসছিলেন দেবর আলমগীর। পরে একদিন ভাবীকে ডাক্তার দেখানোর কথা বলে দেবর তাকে ঢাকার দোহারের জয়পাড়ায় নিয়ে যায়। সেখানে দেবর আলমগীরসহ তার দুজন বন্ধু ভাবীকে ধর্ষণ করে। এরপর তাকে হত্যা করে তার পেট কেটে শরীরে ইট বেঁধে নদীতে ফেলে দেওয়া হয়। ঘটনার কয়েকদিন পর ইছামতি নদী থেকে পুলিশ ভাবীর গলিত লাশ উদ্ধার করে।-সূত্র: বিবিসি

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: