বৃহস্পতিবার, ৬ মে ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

বড়শিতে ধরা পড়লো ১৩ ফুট লম্বা হাঙর



hangorনিউজ ডেস্ক :: এক অস্ট্রেলিয়ান জেলে বড়শিতে ১৩ ফুট লম্বা একটি হাঙরকে গাঁথার পর তিনঘন্টা ধরে ১৬০ পর‌্যন্ত সুতা ছাড়ে। তারপর হাঙরটিকে কাবু করতে সফল হয়। এ্র তিন ঘন্টাব্যাপী যুদ্ধে ১৯ বছর বয়সী ম্যাক্স মুগরিজের হাত ক্ষতবিক্ষত ও রক্তাক্ত হয়ে ওঠে। পরে হাঙরটিকে সমুদ্রে ছেড়ে দেওয়া হয়।
শনিবার অস্ট্রেলিয়ার সময় সকাল সোয়া সাতটায় ম্যাক্স তার বান্ধবির সাথে দেশটির পূর্ব উপকূলের পোস্টভিলে মাছ ধরছিলেন। একসময় তিনি তার বড়শিতে টান অনুভব করেন। ‘প্রায় ২০ সেকেন্ড পর আমি বুঝতে পারি, কিছু একটা বড়শি কামড়ে ধরেছে। আর এটা আমাকে চমৎকৃত করে। জীবনে একবারই এমন সময় আসে’ – বলছিলেন ম্যাক্স। এটা ছিল একটা মাদি টাইগার শার্ক (হাঙর)।
ম্যাক্স বলেন, টাইগার শার্কের মতো এমন অতিকায় শিকারকে ছেড়ে দেওয়া সম্পর্কে তার কোনো সংশয় ছিল না। সাড়ে দশটা নাগাদ হাঙরটি ছাড়া পায়। কিন্তু এ সময়ের মধ্যে তিনি বেশ কিছু ছবি তোলার সময় পান। তার বিশ্বাস ছিল, এটা হয়তো বিশ্বরেকর্ড করবে কোনো বিশাল হাঙরকে শিকার করে আবার ছেড়ে দেওয়ার জন্য।
‘এর মাপ নেওয়ার জন্য ধস্তাধস্তি করার চেয়ে এটাকে জলে সাঁতার কাটতে দেখাটা বেশ আনন্দদায়ক ছিল’ – টেলিগ্রাফ প্রতিবেদককে বলছিলেন ম্যাক্স। তিনি আরো বলেন, ‘এমন কিছু শিকার করা জীবনব্যাপী লক্ষ্য হয়ে থাকে’।
ম্যাক্স জানান, তিনি হাঙরটিকে কমপক্ষে শতবার জলের উপর লাফ দিতে দেখেছেন, যখন তিনি বড়শির সুতা টানছিলেন। তিনি তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘কোনো উপকূলে এতো বড় মাপের কোনো হাঙর শিকার এটাই প্রথম’।
তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে আরো লেখা ছিল, ‘এটা খুবই ভালো যে, ওটা এখন দ্বিধাহীন সাগরে সাঁতার কাটছে’।

সূত্র: টেলিগ্রাফ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: