শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক ইজিএনের নতুন সভাপতি, অনুরূপ সম্পাদক  » «   ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «  

বাবরি মসজিদের জায়গায় মন্দির স্থাপনের রায়



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: আলোচিত অযোধ্যা মামলার রায় দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। রায়ে বলা হয়েছে, অযোধ্যার বিতর্কিত জমি পাচ্ছেন হিন্দুরাই। ফলে সেখানে তৈরি হবে রাম মন্দির। আর বিকল্প জমি দেয়া হবে মুসলিমদের। প্রধান বিচারপতি ছাড়াও বেঞ্চে রয়েছেন বিচারপতি এসএ বোবদে, ডিওয়াই চন্দ্রচূড়, অশোক ভূষণ এবং এস আব্দুল নাজির। ইতিমধ্যেই আদালতে পৌঁছে গিয়েছেন প্রধান বিচারপতি।

শনিবার সকালে শীর্ষ আদালতের এক নম্বর ঘরে রায় ঘোষণা করা হয়। স্থানীয় সময় ১০টা ১৫ মিনিটে সেই ঘর খুলে দেওয়া হয়। তারপর বিচারপতিরা সেই ঘরে প্রবেশ করেন। এরপর রায়ের কপিতে সই করে রায় পড়তে শুরু করেন প্রধান বিচারপতি। এর আগে শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের আর্জি খারিজ করেছে সুপ্রিম কোর্ট। একই সঙ্গে নির্মোহী আখড়ার আর্জিও খারিজ করেন বিচারপতিরা।

বাবরি মসজিদের জায়গায় মন্দির স্থাপনের পক্ষে রায় দিয়েছে আদালত। এজন্য আগামী ৩-৪ মাসের মধ্যে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারকে বিশেষ স্কিম তৈরি করার নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। যাতে বিতর্কিত বাবরি মসজিদের জমি মন্দির পক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয়। অন্যদিকে বিতর্কিত বাবরি মসজিদের জমি বাদে নতুন মসজিদ তৈরির জন্য অযোধ্যার ৫ একর জমি দেওয়া হবে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে।

সুপ্রিম কোর্টের রায়ে আরো বলা হয়, ১৮৫৫ সাল পর্যন্ত প্রমান পাওয়া যায় যে হিন্দুরা ওই স্থানের অন্দরেও প্রবেশ করেছে। ১৮৫৬ পর্যন্ত বাবরি মসজিদে নামাজ পড়ার কোনও প্রমাণ পাওয়া যায় না। পরবর্তীকালে প্রার্থনার জন্য ব্যবহার করা হত সেই মসজিদ। তবে হিন্দুরা যে মনে করে ডোমের নীচেই ছিল রামের জন্মস্থান, এর কোনো সত্যতা খুঁজে পায়নি আদালত। তাই হিন্দুদের এই দাবিকে একটা বিশ্বাস হিসাবে উল্লেখ করেছে সুপ্রিম কোর্ট।

সূত্র: কলকাতা টুয়েন্টি ফোর

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: