শনিবার, ২৮ মে ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «  

বাংলাদেশ তার জন্য নিরাপদ নয় : সালাহ উদ্দিনের স্ত্রী



salah 9999999999999_0নিউজ ডেস্ক :: সালাহ উদ্দিন আহমেদের জন্য নিজের দেশকে নিরাপদ মনে করছেন না তাঁর স্ত্রী হাসিনা আহমেদ। ‘তাকে আমি দেশে ফিরিয়ে নিতে পারব না।’ ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের সঙ্গের এক সাক্ষাৎকারে বলছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদের স্ত্রী হাসিনা আহমেদ।

বাংলাদেশে গেলে কী অবস্থা হবে, জানেন না হাসিনা। অনিরাপত্তার পাশাপাশি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে তিনি জানিয়েছেন, স্বামী নিখোঁজ থাকবার সময় প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ চেয়েও পাননি। পাননি আইজিপিকে। সবমিলে দেশের ব্যাপারে ভরসা নেই তার। স্বামীকে নিয়ে তাই দিন কাটছে শঙ্কায়।

ভারতের আইন যদি অনুমোদন করে, তাহলে যতো শিগিগির সম্ভব স্বামীকে সিঙ্গাপুরে নিতে চান হাসিনা। বহু বছর ধরে যেখানে তার কার্ডিয়াক আর কিডনির সমস্যার চিকিৎসা নিতে হয়।

স্বামীর স্বাস্থ্যই এখন হাসিনার চিন্তার মূল কারণ। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে তিনি আরও জানান, তার স্বামী খুবই অসুস্থ। তার হার্টে ৩টি সেন্ট পড়ানো রয়েছে বলেও জানিয়েছেন হাসিনা।

সালাহ উদ্দিনকে কেন সিঙ্গাপুরে নিতে চান, এমন এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘আমি বলছি না ভারতে আমার স্বামীকে যথাযথ চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না। তবে সিঙ্গাপুরের এলিজাবেথ হাসপাতালে ২০ বছর ধরে চিকিৎসা সেবা নিয়ে আসছেন আমার স্বামী। তারা রোগের ইতিহাসটা জানে।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: