শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

ফের চাঁদে অভিযানের প্রস্তুতি শুরু করল ইসরোর বিজ্ঞানীরা



তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক:: শেষ মুহূর্তে চাঁদের পৃষ্ঠে নামার আগে হারিয়ে গিয়েছিল চন্দ্রযান ২’র ল্যান্ডার বিক্রম। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ায় শেষ পর্যন্ত কী হয়েছিল বিক্রমের তা জানা যায়নি। স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল গোটা ভারতবাসীর। কিন্তু এখনই এই বিষয়ে হাল ছাড়তে নারাজ ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো। তাই ফের একবার চাঁদে অভিযানের জন্য প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন ইসরোর বিজ্ঞানীরা।

বিক্রমের অভিযান ব্যর্থ হয়েছে ঠিকই, কিন্তু ইসরোর বিজ্ঞানীরা আত্মবিশ্বাসী, চাঁদের অন্ধকার অংশে পা রাখবে ভারত থেকে পাঠানো ল্যান্ডার। চাঁদে ঘুরবে রোভার। আর সেই উদ্দেশ্যেই মিশন চন্দ্রযান ৩-এর জন্য তৈরি হচ্ছেন তারা। শোনা যাচ্ছে, আগামী বছর নভেম্বরেই মিশন চন্দ্রযান ৩-এর কাজ শেষ হবে। এই মিশনে কীভাবে কাজ হবে, তার জন্য একটি কমিটিও গঠন করেছে ইসরো। এ নিয়ে গত অক্টোবর থেকে উচ্চস্তরে অন্তত চারটি বৈঠকও হয়ে গেছে বলে জানা গেছে।

চন্দ্রযান ২-এর অরবিটার এখনও কাজ করছে। সেই জন্য পরবর্তী মিশনে এই অংশটি বাদ দিয়েই এগিয়ে যেতে পারবেন বিজ্ঞানীরা। তারা জোর দিচ্ছেন একটি ল্যান্ডার ও একটি রোভারের উপর। ফলে মিশন চন্দ্রযান-৩ তুলনামূলকভাবে অনেকটাই কম খরচে সম্পন্ন হতে পারে।

সূত্রের খবর, মিশনের প্রস্তুতি অনেকটাই এগিয়ে গেছে। ল্যান্ডার চাঁদের কোন অংশে পদার্পণ করবে, সে নিয়েও আলোচনা চলছে। গতবারের চেয়ে এবার আরও বেশি সতর্কভাবে মাঠে নামছে সংস্থা। সম্প্রতি ইসরো প্রধান কে শিবন জানিয়েছেন, ‘‌প্রযুক্তিগত ত্রুটির জন্য আমরা আগের বার কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারিনি। কিন্তু চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে তিনশো মিটার দূর পর্যন্ত কাজ করেছিল আমাদের সিস্টেম। এবার লক্ষ্যে পৌঁছতে সেখান থেকে পাওয়া তথ্যই কাজে দেবে।’‌‌

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: