মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সিলেটে ডাক্তারদের প্রাইভেট চেম্বার বন্ধ, ফার্মেসিতেই চিকিৎসা  » «   ৯ এপ্রিল পবিত্র শবে বরাত  » «   এবার স্পেনও ছাড়ালো চীনকে, ২৪ ঘণ্টায় ৭৩৮ মৃত্যু  » «   সিলেট বিভাগে বৃহস্পতিবার থেকে গণপরিবহন বন্ধ  » «   করোনা মোকাবিলায় দেশে দেশে লকডাউন  » «   খালেদা জিয়ার মুক্তি, করোনা বদলে দিচ্ছে রাজনীতি  » «   খালেদার মুক্তির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাল যুক্তরাষ্ট্র  » «   খালেদা জিয়ার মুক্তিতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক দেখছেন ড. কামাল  » «   করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে গ্রিসে লকডাউন  » «   বান্দরবানের ৩ উপজেলা লকডাউন  » «   ইতালিতে একদিনে ৭৪৩ জনের মৃত্যু  » «   ফ্রান্সে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৮৬ মৃত্যু  » «   নিউইয়র্কে করোনায় আক্রান্ত ২০ হাজার ছাড়াল  » «   সাধারণ ছুটিতে চালু থাকবে ব্যাংক  » «   করোনাভাইরাস: উৎকণ্ঠিত সিলেট, উদ্বিগ্ন মানুষ  » «  

ফের চাঁদে অভিযানের প্রস্তুতি শুরু করল ইসরোর বিজ্ঞানীরা



তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক:: শেষ মুহূর্তে চাঁদের পৃষ্ঠে নামার আগে হারিয়ে গিয়েছিল চন্দ্রযান ২’র ল্যান্ডার বিক্রম। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ায় শেষ পর্যন্ত কী হয়েছিল বিক্রমের তা জানা যায়নি। স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল গোটা ভারতবাসীর। কিন্তু এখনই এই বিষয়ে হাল ছাড়তে নারাজ ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো। তাই ফের একবার চাঁদে অভিযানের জন্য প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন ইসরোর বিজ্ঞানীরা।

বিক্রমের অভিযান ব্যর্থ হয়েছে ঠিকই, কিন্তু ইসরোর বিজ্ঞানীরা আত্মবিশ্বাসী, চাঁদের অন্ধকার অংশে পা রাখবে ভারত থেকে পাঠানো ল্যান্ডার। চাঁদে ঘুরবে রোভার। আর সেই উদ্দেশ্যেই মিশন চন্দ্রযান ৩-এর জন্য তৈরি হচ্ছেন তারা। শোনা যাচ্ছে, আগামী বছর নভেম্বরেই মিশন চন্দ্রযান ৩-এর কাজ শেষ হবে। এই মিশনে কীভাবে কাজ হবে, তার জন্য একটি কমিটিও গঠন করেছে ইসরো। এ নিয়ে গত অক্টোবর থেকে উচ্চস্তরে অন্তত চারটি বৈঠকও হয়ে গেছে বলে জানা গেছে।

চন্দ্রযান ২-এর অরবিটার এখনও কাজ করছে। সেই জন্য পরবর্তী মিশনে এই অংশটি বাদ দিয়েই এগিয়ে যেতে পারবেন বিজ্ঞানীরা। তারা জোর দিচ্ছেন একটি ল্যান্ডার ও একটি রোভারের উপর। ফলে মিশন চন্দ্রযান-৩ তুলনামূলকভাবে অনেকটাই কম খরচে সম্পন্ন হতে পারে।

সূত্রের খবর, মিশনের প্রস্তুতি অনেকটাই এগিয়ে গেছে। ল্যান্ডার চাঁদের কোন অংশে পদার্পণ করবে, সে নিয়েও আলোচনা চলছে। গতবারের চেয়ে এবার আরও বেশি সতর্কভাবে মাঠে নামছে সংস্থা। সম্প্রতি ইসরো প্রধান কে শিবন জানিয়েছেন, ‘‌প্রযুক্তিগত ত্রুটির জন্য আমরা আগের বার কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারিনি। কিন্তু চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে তিনশো মিটার দূর পর্যন্ত কাজ করেছিল আমাদের সিস্টেম। এবার লক্ষ্যে পৌঁছতে সেখান থেকে পাওয়া তথ্যই কাজে দেবে।’‌‌

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: