মঙ্গলবার, ২ জুন ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

ফিরতে চান না ভূমধ্যসাগরে আটকা ৬৪ বাংলাদেশি



প্রবাস ডেস্ক:: ভূমধ্যসাগরের তিউনিশিয়া উপকূলে নৌকায় আটকা ৬৪ বাংলাদেশি অভিবাসন প্রত্যাশী দেশে ফিরতে বা আশ্রয় নিতে রাজি হচ্ছেন না। তাদের দাবি, তারা ইউরোপেই যাবেন। খাবার, চিকিৎসা সেবা ও আশ্রয় প্রত্যাখ্যান করে তারা বলছেন, ইতালি পর্যন্ত পৌঁছানোর জ্বালানি তেল দিতে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

লিবিয়া দূতাবাস জানিয়েছে, বাংলাদেশিদের ওই অনড় অবস্থানেও টলছে না তিউনিশিয়া কর্তৃপক্ষ। লিবিয়াস্থ বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শেখ সিকান্দার আলী ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন দু’দিন আগে।

তিনি জার্জিস কর্তৃপক্ষ এবং তিউনিশিয়ার সেন্ট্রাল গভর্নমেন্টের প্রতিনিধিদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেছেন। তাদের রাজি করিয়েছেন ওই নৌকাকে সমতলে ভিড়তে দিতে এবং অভিবাসনপ্রত্যাশী বাংলাদেশিদের স্থলসীমান্তে সাময়িক আশ্রয় দিতে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, শুরুতে আটকে পড়া বাংলাদেশিরা পানি, খাবার এমনকি ওষুধ পর্যন্ত প্রত্যাখ্যান করেছিল। তিউনিশিয়ার রেড ক্রিসেন্ট তাদের মানবিক সহায়তা দিতে এগিয়ে গেলে তারা তা গ্রহণ করেনি। পরে অবশ্য তাদের কয়েকজন এটি গ্রহণ করেছে এবং তারা তা নিয়ে সাগরে ভাসমান অবস্থায় বেঁচে আছে। প্রায় ১৬ দিন ধরে তারা এখানে সাগরে অবস্থান করছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: