রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ চৈত্র ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

প্লাস্টিকে তৈরি বিশ্বকাপ জার্সিতে কচ্ছপ, কী বার্তা দিচ্ছে লঙ্কানরা?



স্পোর্টস ডেস্ক:: ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপের জন্য প্রতিটা অংশগ্রহণকারী দেশ নতুন জার্সি তৈরি করেছে। সবচেয়ে বেশি আলোচনা-সমালোচনা হয়েছে বাংলাদেশের জার্সি নিয়ে। যে সমালোচনায় শেষমেষ বদলে গেছে বাংলাদেশের জার্সির রং। এরপর যে দলের জার্সি নিয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে, সেটা শ্রীলঙ্কার। তবে এই আলোচনাটা নেতিবাচক নয়, প্রশংসার। বিশ্বকাপ জার্সির কারণে প্রশংসায় ভাসছে ৯৬’র বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

এত বড় আসরের জার্সি বানাতে লঙ্কানরা ব্যবহার করেছে প্লাস্টিকের। সেটাও স্বাভাবিক কোনো প্লাস্টিক নয়, সমুদ্রে ফেলা বর্জ্য প্লাস্টিক ব্যবহার করে বানানো হয়েছে মালিঙ্গা-ম্যাথুসদের বিশ্বকাপ জার্সি। চিরায়ত ধারা থেকেও বেরিয়ে এসেছে তারা। জাতীয় বীরত্বের প্রতীক সিংহের ছবি ছোট করে দিয়ে তারা সমুদ্রে বাস করা কচ্ছপের ছবি বড় করে ব্যবহার করেছে। মূলত সমুদ্রের জীব বৈচিত্র্য রক্ষার্তেই এমন উদ্যোগ নিয়েছে লঙ্কানরা।

নিত্যদিনের সঙ্গী প্লাস্টিকের ব্যবহার সব দেশেই আছে। সহজলভ্যতার কারণে প্লাস্টিকের অত্যাধিক ব্যবহার দেখা যায়। পচনশীল না হওয়ার কারণে প্লাস্টিকের চাহিদা বেশি। কিন্তু এই বেশিতে মিশে আছে ভয়াবহ কিছু বিষয়। প্লাস্টিক শত শত বছর টিকে থাকে। ব্যবহারের পর নদীতে ফেলা প্লাস্টিক পৌঁছে যায় সমুদ্রে। সেখানেই জায়গা হয় এসব প্লাস্টিকের। যা সমুদ্রের প্রাণীদের জন্য রীতিমতো হুমকিস্বরুপ।

গত কয়েক বছর ধরে সমুদ্র থেকে প্লাস্টিক বর্জ্য সরানোর কাজ করে আসছে শ্রীলঙ্কার নৌবাহিনী। কিন্তু সরিয়েও বিশেষ ফায়দা নেই। এসব প্লাস্টিক যাবে কোথায়? মোট কথা প্লাস্টিকের ব্যবহার কমানোর চেষ্টা করে আসছে তারা। যে কারণে প্লাস্টিককে রিসাইকেল করে তা আবারও ব্যবহার করার উপযোগী করে তুলছে তারা। এটাই শ্রীলঙ্কা দলের জার্সির মূল বার্তা। অর্থাৎ, প্লাস্টিকের পরিমিত ও পুনর্ব্যবহার সম্পর্কে বিশ্ববাসীকে সচেতন করতে শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপ জার্সিকে বেছে নিয়ে দেশটির নৌবাহিনী।

জার্সির মাধ্যমে সামুদ্রিক কচ্ছপ বাঁচানোর যে বার্তা লঙ্কানরা দিয়েছে, সেটা শুধু একটি নির্দিষ্ট প্রাণীকে বাঁচনোর জন্য নয়। প্লাস্টিক বর্জ্যর কারণে সমুদ্রের তলদেশের সব প্রাণীকূল বাঁচানোর বার্তা দিয়েছে তারা। শ্রীলঙ্কা তাদের চিরায়ত গাঢ় নীল ও হলুদের সংমিশ্রণে যে জার্সিটি তৈরি করেছে, সেখানে সামুদ্রিক কচ্ছপের ছবি দেওয়া হয়েছে। এমন বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি ডিজাইনেও দারুণ ভিন্নতা এনেছে তারা। সব মিলিয়ে শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপ জার্সিটি সব ক্রিকেটমোদীর নজর কেড়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: