মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

প্রতারক স্বামীকে খুঁজতে বাংলাদেশে ডেনিশ নারী নাদিয়া



নিউজ ডেস্ক:: সন্তানের স্বীকৃতি ও স্ত্রীর অধিকার আদায়ে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার মফিজ মেম্বারের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন নাদিয়া (২৯) নামে এক ডেনমার্কের তরুণী। জানা যায়, ডেনমার্কের ওই নারী তিনদিন আগে বাংলাদেশে এসে নাঙ্গলকোটের আশারকোটা গ্রামের মফিজ মেম্বারের বাড়িতে অবস্থান নেন। তার সঙ্গে রয়েছে তিন বছর বয়সী একটি কন্যা সন্তান।

নাদিয়ার দাবি, ওই গ্রামের মফিজ মেম্বারের ছেলে সাইফ তার স্বামী। এ সময় প্রতারক আখ্যা দিয়ে সাইফের বাড়ির লোকজন ওই নারীকে মারধর করেন।

নাদিয়া বলেন, প্রায় ১০ বছর আগে নাঙ্গলকোট উপজেলার আশারকোটা গ্রামের মফিজ মেম্বারের ছেলে সাইফ আমাকে বিয়ে করে। এরই মধ্যে আমাদের সংসারে জন্ম নেয় একটি কন্যা সন্তান। দীর্ঘ ১০ বছরের বিবাহিত জীবনে আমার পরিবার থেকে এবং আমার চাকরির বেতনের ৫০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে সাইফ। ডেনমার্ক থেকে বাংলাদেশে আসবে বলে আমার কাছ থেকে প্রায় ৫০ হাজার ইউরো হাতিয়ে নিয়েছে সাইফ। তিন মাস আগে বাংলাদেশে আসে সাইফ। দেশে এসেই আমার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় সে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, দেশে এসে সাইফ কুমিল্লার কোটবাড়ি এলাকার অনার্স পড়ুয়া এক মেয়েকে ডেনমার্ক নেবে বলে কৌশলে বিয়ে করেছেন। সোমবার রাতে ডেনমার্কের ওই নারীকে গ্রামের বাড়ি থেকে কৌশলে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড এলাকার হোটেল নুরজাহানে নিয়ে আসে সাইফের লোকজন। পরে সেখান থেকে কুমিল্লা নগরীর রেসকোর্স এলাকায় হোটেল রেডরোফে নেয়া হয়।

ওই হোটেলে অবস্থানকালে নাদিয়া বলেন, মঙ্গলবার সকালে ডেনমার্ক চলে গেছে সাইফ। সে ফোন করে বলে আমাকে চলে যেতে। তাই আমার আর বাংলাদেশে থেকে লাভ কি।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কুমিল্লা জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজিম উল আহসান ও নাঙ্গলকোট থানা পুলিশের ওসি মামুনুর রশিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন নাদিয়া। এ সময় পুলিশ কর্মকর্তারা তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এ ঘটনায় নাঙ্গলকোট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে রেখেছেন নাদিয়া।

কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজিম উল আহসান বলেন, মঙ্গলবার রাত ৩টার ফ্লাইটে ডেনমার্ক চলে গেছেন নাদিয়া। তাকে আমরা বিমানবন্দর পর্যন্ত নিরাপত্তা দিয়ে পৌঁছে দিয়েছি। স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছেন নাদিয়া। তার অভিযোগ তদন্ত করে দেখব আমরা।

এদিকে এসব বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত সাইফ এবং তার বাবা মফিজ মেম্বারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও কথা বলতে রাজি হননি তারা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: