বুধবার, ১ ডিসেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

নিয়মের বাহিরে গাড়ির আকার বাড়ালে ব্যবস্থা: প্রধানমন্ত্রী



নিউজ ডেস্ক:: নিয়মের বাহিরে কোনো পরিবহনের আকার বাড়ালে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘রাস্তায় পরিবহন চলাচলের জন্য কতটুকু জায়গা লাগবে তা সায়েন্টিফিকভাবে তৈরি করা হয়। কিন্তু অনেকেই সিট বাড়ানোর জন্য পরিবহনের আকার বাড়ায়। এটা বন্ধ করতে হবে।’ এছাড়া নিয়ম না মেনে গাড়ি চালালে তাদের বিরুদ্ধেও যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

মঙ্গলবার রাজধানীর কৃষিবিদি ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘রাস্তা বিবেচনা করে সবাইকে গাড়ি চালাতে হবে। নকশা পরিবর্তন করে গাড়ি বড় করা যাবে না। আরেকটি গাড়ি যাওয়ার সাইট বিবেচনা করতে হবে। এটা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

রাস্তা পারাপারে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘রাস্তা পারাপারে অধৈর্য হওয়া যাবে না। সবাইকে ট্রাফিক আইন মেনে চলতে হবে। এ ক্ষেত্রে পথচারীদের যেমন দায়িত্ব আছে, তেমনি গাড়িচালকদেরও দায়িত্ব আছে।’ ‘অনেকেই আছেন যারা গাড়িতে বসে হাত-পা, কুনই বাইরে ঝুলিয়ে রাখেন। এটা আসলে যাত্রীর কাজ না। এতে যে কোনো গাড়ির সঙ্গে লেগে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এ ক্ষেত্রে সচেতন হতে হবে।’

‘নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়ন সরকারের একার না সর্বস্তরের মানুষের’ এমন মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দুর্ঘটনার জন্য শুধু চালক নয়, পথচারীদেরও দায় আছে। এজন্য সড়কে চলাফেরার সময় সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। দুর্ঘটনা ঘটলে দেখতে হবে সেখানে কার দোষ। পথচারীদের যেমন দায়িত্ব আছে, তেমনি চালকদেরও দায়িত্ব আছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গাড়ি চালাতে চালাতে মোবাইল ব্যবহার করছে। রেলপথ অতিক্রম করার সময় পথচারীরা মোবাইলে কথা বলছে। ফোনে কথা বলার সময় এত মশগুল যে ট্রেন আসছে সে শব্দও শুনতে পায় না। অনেকে দুই রেললাইনের মাঝখান দিয়ে হাঁটেন। কিন্তু যেকোনো সময় ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল হয়ে যেতে পারে, গাড়ি থেমে যেতে পারে, এতে বড় দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা থাকে।’

চালকদের অসুস্থ প্রতিযোগিতা না করার আহ্বান জানিয়ে সরকার প্রধান বলেন, ‘পেছনে কোনো গাড়ি আছে কি-না, রাস্তার সাইট কতটুকু আছে, ভুল পথে গাড়ি চলছে কি-না এমন বিষয় মাথায় রেখে চালকদের গাড়ি চালাতে হবে। এছাড়া চালকদের অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধ করতে হবে। নয়তো কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে আরও।’

সারাদেশে সড়কের উন্নয়ন হচ্ছে জানিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘আমরা সড়ক উন্নয়ন করছি। দুর্ঘটনা কমে এসেছে। সচেতন হলে একেবারেই কমে আসবে। তিনি বলেন, ‘চারলেনের রাস্তা করার ব্যবস্থা করছি সারাদেশে। ইতোমধ্যে অনেক সড়ক চারলেন হয়ে গেছে। যাতে দুর্ঘটনা কমে সেভাবে কাজ করছি।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: