রবিবার, ৫ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

দুই পুলিশকে চড় মেরে যুব মহিলা লীগ নেত্রী আটক



উল্টোপথে গাড়ি চালাতে বাধা দেয়ায় গাজীপুরে এবার ট্রাফিক পুলিশের দুই কনস্টেবলকে চড়-থাপ্পড় মারলেন যুব মহিলা লীগ নেত্রী ও সংরক্ষিত নারী আসনের কাউন্সিলর রুহুননেছা রুনা (৪০)। অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজের পর পুলিশ সদস্যের ইউনিফর্মের শার্টের বোতাম ছিঁড়ে ফেলেন তিনি। শনিবার (১৪ মার্চ) দুপুরে মহানগরীর চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় অবৈধভাবে ইউন্টার্ন নেওয়াকে কেন্দ্র করে বাগ্বিতণ্ডার একপর্যায়ে পুলিশ সদস্যদের গায়ে হাত তোলেন তিনি। এ ঘটনায় পুলিশ রুহুননেছা রুনা আটক করেছে।

তিনি গাজীপুর মহানগর যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক ও গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সংরক্ষিত নারী আসনের ৩১, ৩২ ও ৩৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্র জানায়, চান্দনা চৌরাস্তা মোড়ে ইউন্টার্ন ও উল্টো পথে গাড়ি চালানো বন্ধে রশি টানিয়ে রাখা ছিল। কাউন্সিলর রুহুননেছা ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে রশি সরিয়ে ইউন্টার্ন নেওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময়ে সেখানে কর্তব্যরত দুই ট্রাফিক পুলিশ সদস্য তাকে থামান। রুহুননেছা রুনা নিজেকে কাউন্সিলর হিসাবে পরিচয় দিলেও পুলিশ তাকে ইউন্টার্ন নিয়ে উল্টোপথে গাড়ি নিতে বাধা দেন।

পরে উভয়ের মধ্যে বাগ্বিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে রুহুননেছা উত্তেজিত হয়ে ওই ট্রাফিক পুলিশের গালে চড় দিয়ে বসেন এবং পুলিশ সদস্যের ইউনিফর্মের শার্টের বোতাম ছিঁড়ে ফেলেন। সেখানে থাকা ট্রাফিক পুলিশ বক্সে থেকে আরও পুলিশ এসে তাকে আটক করে বসিয়ে রেখে বাসন থানা-পুলিশকে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ দুপুর আড়াইটার দিকে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যান।

কাউন্সিলর রুহুননেছা বলেন, চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় অনেকেই উল্টোপথে যাতায়াত করে থাকে। একটি অনুষ্ঠানে যাওয়ার জন্য তাদেরকে নিজের পরিচয় দিয়ে অনুরোধ করলেও তারা কথা রাখেনি। একপর্যায়ে পুলিশ এমন আচরণ করছিল যেন আমার উপড়ে এসে পড়বে। তখন নিজেকে রক্ষা করতে চর দিয়েছি।

বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম কাউছার চৌধুরী এ প্রতিবেদককে জানান, রুহুননেছা রুনা পুলিশকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আমরা পুলিশ পালি, দুই টাকার পুলিশ একজন নির্বাচিত কাউন্সিলরকে বাধা দেয়। দুই পুলিশ সদস্যকে মারধরের অভিযোগে ওই নেত্রীকে আটক করে থানা হেফাজতে রাখা রয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পুলিশ কমিশনার মাজহারুল ইসলাম এ প্রতিবেদককে জানান, যুব মহিলা লীগের নেত্রী রুহুননেছা রুনা উল্টা পথে গাড়ি চালাচ্ছিল। এ সময় কর্তব্যরত অবস্থায় দুই কনস্টেবল তাকে বাধা দেয়। এতে তিনি গাড়ি থেকে নেমে পুলিশ সদস্যদের চড়-থাপ্পড় মারেন এবং অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন। পরে পুলিশ তাকে আটক করে বাসন থানায় সোপর্দ করে।সূত্র: পূর্বপশ্চিমবিডি

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: