মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

জিয়ারতকারীদের কষ্ট লাঘবে অর্ধলক্ষ চারা পাঠালেন পাক শিল্পপতি



নিউজ ডেস্ক:: পাকিস্তানের সাবেক শিল্পপতি মোহাম্মদ দরবার বন্দর নগরী করাচি থেকে ৫০ হাজার ছায়াতরু ইরাকে পাঠাবেন। এরই মধ্যে প্রথম চালানে প্রায় ১০ হাজার ছায়াতরুর চারা পাঠানো হয়েছে। এ সব গাছ ইরাকের পবিত্র নগরী নাজাফ থেকে কারবালা পর্যন্ত বিস্তৃত ৮০ কিলোমিটার পথের দু’পাশে লাগান হবে।

গত বছর আরবাইনের জিয়ারত শেষে তার স্বজনরা রোদে পোড়া হয়ে করাচি ফিরে আসার পর আহলে বাইয়াত ভক্ত দরবারের মনে ছায়াতরু পাঠানোর কথা আসে। আরবাইন বা ১০ মহররম বা আশুরার ৪০ দিন পূর্তিকে কেন্দ্র করে নাজাফ থেকে কারবালায় পায়ে হেঁটে যান লাখ লাখ জিয়ারতকারী। গত বছর এ জিয়ারতকারীদের মধ্যে ছিলেন দরবারের ছেলের বউ এবং নাতি।

এ রাস্তার দু’পাশে বেশির ভাগ এলাকা ধু ধু করছে এবং কোনও গাছপালা প্রায় নেই। জিয়ারত শেষে তারা অন্যান্যদের মতই রোদে পোড়া হয়ে ফিরে আসেন। এতে জিয়ারতকারীদের কষ্ট দূর করার জন্য রাস্তা দু’পাশে ছায়া-তরু বোনার কথা ভাবতে থাকেন দরবার। তিনি ইরাক সফর করেন এবং গাছ লাগানর জন্য সেখান কর্মকর্তাদের অনুমতিও আদায় করেন। চারা গাছ কেবল লাগাবেন না বরং এবং এগুলোকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য প্রয়োজনীয় যত্ন-আত্তিও করবেন বলে তাদের নিশ্চিত করেন তিনি।

পরীক্ষামুলক ভাবে নাজাফে কিছু চারা বোনেন তিনি। তার এ পরীক্ষা ভালো ভাবে উৎরে যায়। তিনি বলেন, নাজাফে লাগান চারাগুলো সুখে-শান্তিতে বেড়ে উঠছে। করাচি থেকে এবারে প্রথম চালানে আট প্রজাতির ৯৮০০ চারা পাঠানো হয়। এ সব চারার কোনো কোনোটির বয়স আটমাস। ইরাকে বিরাজমান পরিস্থিতির কারণে প্রথম চালান পাঠাতে প্রায় একমাস দেরি হয়েছে।

এ সব চারা ইরান হয়ে ইরাকে যাবে। গোটা শীতকাল এগুলো থাকবে বাগদাদের একটিনার্সারিতে। আগামী মার্চ থেকে শুরু হবে এ গুলো বোনার কাজ। প্রায় ১২ জনের একটি কর্মীদলকে এ সব চারার সঙ্গে ইরাকে পাঠান হয়েছে।

তিন বছরের মধ্যে চারা বোনার কাজ শেষ হওয়ার আশা ব্যক্ত করেন দরবার। এ খাতে তার ব্যয় হবে আড়াইশ’ কোটি রুপী বা প্রায় সাড়ে ১৬ হাজার মার্কিন ডলার। ছায়াঘেরা পথে জিয়ারতকারীদের গমনাগমনের সুন্দর দৃশ্য দেখার সৌভাগ্য শেষপর্যন্ত ৮৫ বছর বয়সী তার হবে কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত নন দরবার।

তবে আল্লাহ তাকে এ বয়সেও সঠিক কাজ করার তৌফিক এনায়েত করেছেন সে জন্য তার দরবারে লাখো লাখো শুকরিয়া আদায় করেন তিনি। তিনি বলেন, প্রকৃতির সঙ্গে মিলে মিশে কাজ করতে পারছি এর চেয়ে ভালো আর কি হতে পারে!

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: