রবিবার, ১৩ জুন ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

জগন্নাথপুরে অগ্নিকান্ডে ৩টি দোকন ভস্মিভূত : আহত ২



10. agunজগন্নাথপুর সংবাদদাতা::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে পুলিশ আসামী ধরতে যাওয়ার কারণে প্রতিপক্ষের লাগানো আগুনে ৩ টি ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে প্রায় ৪/৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়। এ সময় মহিলাসহ ২ জন আহত হন। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে, জগন্নাথপুর উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নের কাঠালখাইড় গ্রামে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, কাঠালখাইড় গ্রামের মাহির উল্লা ও সামাদ মিয়ার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে মামলা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। গতকাল মঙ্গলবার মাহির উল্লার দায়ের করা একটি মামলার আসামী ধরতে যান জগন্নাথপুর থানার এস আই মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ। এ ঘটনায় প্রতিপক্ষের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। পুলিশ বাড়িতে যাওয়ার কারণে গতকাল বুধবার বেলা ১২ টার দিকে সামাদ মিয়ার লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে মাহির উল্লার বাড়িতে গিয়ে হামলা চালায়। প্রথমে মাহির উল্লা ও তার স্ত্রীকে নির্মমভাবে মারপিট করে বাড়িঘর এবং বাড়িতে থাকা মাহির উল্লার ছোট একটি দোকান ঘর ভাংচুর করে। এ সময় নগদ টাকা মূল্যবান আসবাবপত্র লুটপাট করে নিয়ে যায়। পরে ভাংচুর করা ৩ টি ঘরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। দিন দুপুরে প্রতিপক্ষের লাগানো আগুনে ঘরগুলো পুড়ে যাওয়ার দৃশ্য গ্রামের শতশত লোকজন দেখলেও কেউ প্রতিবাদ করেনি বা করার সাহস পায়নি। এক পর্যায়ে আগুনে ৩ টি ঘর সম্পূর্ণ পুড়ে ছাই হয়ে যায়। প্রায় ঘন্টা ব্যাপী চলে প্রতিপক্ষের তাণ্ডবলীলা। পরে প্রতিপক্ষের লোকজন চলে গেলে গ্রামের অন্যান্য লোকজন গিয়ে আহত মাহির উল্লা (৭৫) ও তার স্ত্রী জুলেছা বেগমকে (৬০) উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা করান। খবর পেয়ে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জগন্নাথপুর থানার এস আই মিজানুর রহমান ও এস আই আব্দুল কাদের জানান, ঘটনাটি খুবই কষ্টদায়ক। অবশ্যই এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: