শুক্রবার, ১৪ অগাস্ট ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «  

ছয় খাবারে গরম জয়



Morning_2_250050285লাইফ স্টাইল ডেস্ক :: গরম এলেই সুস্থতা নিয়ে কমবেশি সবার মধ্যে দুশ্চিন্তা কাজ করে। রোদের খরতাপ, ডিহাইড্রেশন, ফুড পয়েজনিংসহ নানা শারীরিক সমস্যা তো রয়েছেই। কাজেই গরমে সুস্থ থাকতে সঠিক খাদ্যতালিকা মেনে চলা প্রয়োজন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, মৌসুমী ফলমূল ও সবজিই মূলত শরীরের চাহিদা মেটানো এবং রোগ নিরাময়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

গ্রীষ্মকালে খাদ্যতালিকায় ৬টি খাবার রেখে সহজেই উপভোগ করতে পারেন গোটা ঋতু। এসব খাবার আপনার দেহ-মন ভালো তো রাখবেই, মজার ব্যাপার হলো- এগুলোর বেশিরভাগ দেখা যাবে আপনার পছন্দের তালিকাতেই রয়েছে। একবার চোখ বুলিয়ে নিন।

পানি

গরমে ঘামের মাধ্যমে শরীর থেকে প্রচুর পানি বের হয়ে যায়। এজন্য বেড়ে যায় পানির চাহিদাও। তাই সকালে ঘুম থেকে উঠে দুইগ্লাস পানি পান করুন। এটি শুধু আপনাকে স্বস্তিই দেবে না, শরীরে উদ্যমও ফিরিয়ে আনবে। এছাড়া ডিহাইড্রেশন থেকে মুক্তি পেতে প্রচুর পানি পান করা প্রয়োজন।
একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির চা, কফি, জুস, দুধ বা স্যালাইনসহ দিনে কমপক্ষে আড়াই লিটার পানি পান করা উচিত। রোদে বা বাইরের পরিবেশে কাজ করলে তিন লিটার পানি পান করা ভালো। তবে যারা এসি রুমে বসে কাজ করেন তাদের ঘাম কম হয়, ফলে শরীর থেকে পানি নির্গমনের হার কমে যায়। এজন্য তাদের দৈনিক দুই থেকে আড়াই লিটারের বেশি পানি পান করার প্রয়োজন নেই।

সালাদ

কম ফ্যাট, কম ক্যালরি এবং পানিযুক্ত সবজি ও ফল যেমন- শসা, টমেটো, গাজর, পেঁয়াজ, তরমুজ, আঙ্গুর, আম, স্ট্রবেরি দিয়ে সালাদ খেতে পারেন। সাধারণত দুপুরের খাবারের পর সালাদ খাওয়া শরীরের পক্ষে উপকারী। কারণ, সালাদ ফাইবারের ভালো উ‍ৎস হওয়ায় হজমে সহায়তা করে ও রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়।

জুস

গরমে নানারকম ফল যেমন- আঙ্গুর, তরমুজ, ডালিম, কমলা, আম ও লেবুর জুস খেতে পারেন। এসব ঘরে তৈরি জুস আপনার শরীরকে সতেজ রাখার সঙ্গে সঙ্গে হজম শক্তিও বাড়িয়ে তুলবে। ফলের রসের অন্যতম পরিপূরক হলো গাজরের জুস। এটি চোখের জন্য ভীষণ উপকারী। একইসঙ্গে এটি রোদে পোড়া দাগ দূর করতেও সাহায্য করে। তবে এসব জুসে চিনির পরিবর্তে মধু ব্যবহার করাই ভালো।

মাঠা তোলা দুধ

চা বা কফির পরিবর্তে মাঠা তোলা দুধ খেতে পারেন। এটি একইসঙ্গে হজমেও সহায়তা করে ও শরীরকে ঠাণ্ডা রাখে। মাঠা তোলা দুধে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন সি, যা পাকস্থলির বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে। আর সর্বোপরি এটি সুস্থ ত্বক ধরে রাখতেও সহায়তা করে।

নারকেলের পানি

রোদের ক্ষতিকর রশ্মির প্রভাব থেকে ফুসফুস, কিডনি ও চোখকে মুক্ত রাখতে সকালে খালি পেটে নারকেলের পানি পান করতে পারেন। এতে রয়েছে সোডিয়াম ও ক্লোরিন সল্ট, যা রক্ত পরিষ্কার করে। এছাড়া পটাসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে বলে এটি আপনাকে সারাদিন রাখবে প্রাণবন্ত এবং কর্মক্ষম।

আধাসেদ্ধ সবজি

গরমে যথাসাধ্য তেল, মসলা ও অতিরিক্ত সেদ্ধ বা রান্না করা খাবার এড়িয়ে চলুন। দুপুরে ও রাতে আধসেদ্ধ সবজি খেতে চেষ্টা করুন। এতে পেটের সমস্যা বা গ্যাস্ট্রিক হওয়ার সম্ভাবনা কমে যাবে। অনেকেরই ধারণা, আধসেদ্ধ খাবার মোটেও মুখরোচক নয়। সেক্ষেত্রে বানিয়ে নিন নিজের পছন্দমতো রেসিপি।
আলু আধাসেদ্ধ করে ভেঙে নিন। সসপ্যানে হালকা সরষের তেল দিয়ে কিউব করে কাটা গাজর ও টমেটো দিয়ে দুই মিনিট নাড়ুন। এবার সেদ্ধ আলু দিন। চাইলে ক্যাপসিকাম ব্যবহার করতে পারেন। সবশেষে এক চিমটি লবণ আর হালকা কাঁচামরিচ কুচি দিয়ে নামিয়ে ফেলুন। এবার শসাসমেত পরিবেশন করুন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: