শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

‘চোখ বুঝে বলে দিতে পারি নির্বাচন সুষ্ঠ হবে না’



Roufনিউজ ডেস্ক::
ঢাকা: সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার বিচারপতি আব্দুর রউফ বলেছেন, যতদিন নির্বাচন প্রশাসনের সাথে সংশ্লিষ্ট থাকবে ততদিন নির্বাচন সুষ্ঠ হতে পারে না। বঙ্গভবনে যিনি বসে আছেন, তিনি আর প্রশাসন তো একই কথা। প্রশাসন থেকে নির্বাচনকে বের করে আনতেই হবে। আর এটা করতে না পারলে আমি চোখ বুঝে বলে দিতে পারি নির্বাচন সুষ্ঠ হবে না।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে সেন্টার ফর ন্যাশনালিজম স্টাডিজ আয়োজিত ‘একটি গ্রহনযোগ্য নির্বাচনই দিতে পারে চলমান সংকটের সমাধান’ শীর্ষক এক গোলটেবিল আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আব্দুর রউফ বলেন, আমরা নির্বাচনের চরিত্র নষ্ট করে ফেলেছি। স্বাধীনতার পর দেশে যতগুলো নির্বাচন হয়েছে সবগুলোর চরিত্র এক। ভোটাররা যতদিন তাদের নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে না পারবে ততদিন পর্যন্ত তারা তাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হবে।

সাবেক এই বিচারপতি বলেন, দেশের চলমান সংকটের মূল্ কারণ হলো সকল কিছুতেই নিয়মবর্হিভূত কার্যক্রম। চলমান এই সমস্যার সমাধানের একমাত্র পথ হল নির্বাচন। নির্বাচন জনগণের হাতে দিতে হবে। নির্বাচনে অবশ্যই জনগণকে তাদের ভোটের অধিকার প্রয়োগের ক্ষমতা নিশ্চিত করতে হবে। এটা না হলে চলমান সমস্যা সমাধান হবেনা।
তিনি বলেন, যতদিন পর্যন্ত দলের পক্ষ থেকে প্রার্থী মনোনিত হওয়ার প্রথা বন্ধ না হবে ততদিন পর্যন্ত টাকার খেলাও বন্ধ হবেনা। তাই এই প্রথা বন্ধ করতে হবে। প্রার্থীদের ধারনা থাকে একটাই তারা নির্বাচনে ১০ কোটি খরচ করবে পাচঁ বছর পর ২০০ কোটি টাকা কামাবে।
বাংলাদেশে রাজনীতির নামে রাজার নীতি চলছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, রাজনীতি রাজার নীতি নয়, রাজনীতি হলো নীতির রাজা। রাজনৈতিক দল ছাড়া পৃথিবীতে কোন গণতান্ত্রিক চর্চা হতে পারেনা।

আয়োজক সংগঠনের চেয়াপারসন ব্যারিস্টার ফাতেমা আনোয়ারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, ডেমোক্রেসি ওয়াচের নির্বাহী পরিচালক তালেয়া রহমান, বিএনপির চেয়ারপারসনে উপদেষ্টা এ্যাড. আহমেদ আজম খান, ব্যারিস্টার রাগিব রউফ, এসানুল কবির জেনার, জানি পপের নির্বাহী পরিচালক নাজমুল ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা, পারভেজ আহমেদ প্রমুখ।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: