মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «  

কৃষকেরা ধানের দাম পাচ্ছেন না, কারণ দুর্নীতি: মেনন



নিউজ ডেস্ক:: কৃষকের ধানের ক্ষেতে আগুন দেওয়ার ঘটনা আবেগের বহিঃপ্রকাশ বলে মন্তব্য করেছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। কৃষকেরা ধানের দাম পাচ্ছেন না, কারণ এখানেও দুর্নীতি হচ্ছে।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে সোমবার ‘দুর্নীতি, ঋণ খেলাপি ও ব্যাংকিং খাতে নৈরাজ্য বন্ধে বাজেটে সুস্পষ্ট অঙ্গীকার চাই’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি কমরেড আবুল হোসেন সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক স্বদেশ রায় ও দলের মহানগর সদস্য বেনজীর আহমেদ।

মেনন বলেন, আজকে যখন ধান উদ্বৃত্ত হয়ে গেছে, তাতে কৃষকরা ধানের দাম পাচ্ছেন না। কারণ, আমনের যে চাল ছিল বোরোতে এসে দেখা গেছে, মিলের মালিকরা আগেরটাই বিক্রি করতে পারেননি। প্রশ্ন হলো তারা কেন পারেননি।

চালের দাম বাড়ছে, বেড়েই যায়। অথচ মিলের মালিকরা চাল বিক্রি করতে পারেন না, তার কারণ হলো যেখানে আমাদের উদ্বৃত্ত ৩০ লাখে চলে গেছি, সেখানে আমরা ৬০ লাখ টনের মতো আমদানি করি। এখনও ৪ লাখ টন প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে।

তিনি আরও বলেন, এই আমদানির ক্ষেত্রে আমি আবারও দুর্নীতির জায়গায় চলে আসি। যেখানে পৃথিবীতে ৪০০ ডলার প্রতি টন, আমরা সেখানে নিয়ে এসেছি ৭০০ থেকে ১ হাজার ডলার দরে প্রতি টন চান।

এই যে মধ্যের এই টাকাটা কোথায় গেল? এই টাকাটা চলে গেছে বিদেশে পাচার হয়ে। তাহলে দুর্নীতি তো গোড়ার মধ্যে রয়ে গেছে। এই যে কৃষক যারা ধানের দাম পাচ্ছেন না, তার মধ্যেও আছে দুর্নীতি নীতির ক্ষেত্রে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: